শুক্রবার, জানুয়ারি ১৮

পান খেয়ে মুক্তি পান নানা রকম রোগ থেকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পান খান তো মুখশুদ্ধি হিসেবে।  কিন্তু কী এর গুণাগুণ, জেনে খান কি? অনেক সময়ে কেটে গেলে, কোথাও র‍্যাশ বেরোলে বা জ্বালা পোড়া প্রদাহ হলে আপনি তাতে থেঁতো করে পানের রস লাগিয়ে দিন, আরাম পাবেন।  অনেক সময়ে আবার আমাদের পেটের ভিতরে একটা জ্বালা ভাব হয়। তখন কী করবেন? সহজ উপায়, পান পাতার রস।  মানে বাইরের জ্বালা পোড়া হোক বা ভিতরের যন্ত্রণা, দাওয়াই হিসাবে পান পাতার রস টোটকার মত কাজ করে।  পেটপুরে খাওয়া দাওয়া করলেন,তারপর আইঢাই অবস্থা হলে হজমের সমস্যায় কষ্ট পান অনেকেই।  আবার কষিয়ে মটন খাওয়ার পরের দিন ভুগতে হয় কনস্টিপেশনে।  এ ক্ষেত্রেও আপনার মুশকিল আসান পানই।  শরীরের বাইরে কোনোও কাটাছেঁড়ায় পান পাতা বেটে লাগিয়ে দিতে পারেন। তেমনি শরীরের ভিতরের জ্বালা যন্ত্রণায় পান চিবিয়ে খান বা পান পাতা বেটে রসটা খেয়ে নিন।  পেয়ে যান উপশম।

শরীর যখনই কষে যায় তখন কোষ্ঠকাঠিন্যর মত ঝামেলা তৈরি হয়। আপনার অফিস যাওয়া থেকে শুরু করে যাবতীয় কাজেই দেরি হতে থাকে, কারণ সকাল থেকেই সময় কাটান বাথরুমেই।  পান খান রোজ, এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আপনার শরীরের পি এইচ লেভেলে ভারসাম্য আনবে। ফলে স্টমাক রিলিফ পাবে।  মুক্তি পাবেন কন্স্টিপেশন থেকে।  তবে মনে রাখবেন রোজ কিন্তু খালি পেটেই চিবোতে হবে পান পাতা।

আপনি কি ব্রঙ্কাইটিসের মত কঠিন রোগে নাজেহাল হচ্ছেন? উপায় কিন্তু একই।  পানের রস সহজেই আপনার বুকে জমে থাকা কফ বের করে দিতে পারে।  অনেক ওষুধতো আমরা মুঠোভরে খাই,কিন্তু এটা কখনো ট্রাই করেছেন কি? করে দেখুন। কারণ আপনার ফুসফুস এবং ব্রঙ্কিয়াল কর্ডের জমে থাকা নাছোড় কফ পানের সৌজন্যে সহজেই বেরিয়ে আসবে শরীর থেকে, ফলে সহজে শ্বাস নিতে পারবেন আপনি।  তাহলে আর দেরি না করে বরং পানের এক দু’ গোছ কিনেই ফিরুন বাড়িতে।

তবে শুধু সাদা পান পাতা চিবোলেই তার গুণ পাবেন। গিন্নি যদি দুপুরের ভাতপর্ব সেরে মুখে একখিলি পান গুঁজে বসেন আর তাতে সুপুরি জর্দা খয়ের চুনও থাকে তাহলে কিন্তু হিতে বিপরীত! বুঝতেই পারছেন শুধু পান পাতার যা যা গুণ তা সবই নষ্ট হতে পারে এই সুপুরি জর্দার কারণে। সেটার নিয়মিত অভ্যাসে কিন্তু ক্যানসারের মত মারণরোগও হতে পারে। তাই কী ভাবে পান খাবেন তা আপনার হাতে।  শুধু শুধু পান খান আর নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পান।

 

 

 

Shares

Comments are closed.