রবিবার, অক্টোবর ২০

লক্ষ্যের কাছে চান্দ্রায়ন-২, চাঁদের কক্ষপথে পাঠানোই বড় চ্যালেঞ্জ

  • 136
  •  
  •  
    136
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ৩০ দিন ধরে মহাকাশে যাত্রা করার পরে চাঁদের খুব কাছাকাছি পৌঁছেছে ভারতের উপগ্রহ চান্দ্রায়ন-২। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে সাড়ে ন’টার মধ্যে তাকে চাঁদের কক্ষপথে স্থাপন করবেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা। এই কাজটি অত্যন্ত কঠিন। কারণ চাঁদের কক্ষপথের কাছাকাছি আসার পর উপগ্রহের গতি যদি খুব বেশি থাকে, তাহলে সে আবার ফিরে আসবে উল্টোদিকে। তারপর মহাকাশে হারিয়ে যাবে।

এই অবস্থায় খুব সতর্ক হয়ে উপগ্রহের গতি কমিয়ে আনতে হবে। কোনও ভুল হলে পুরো মিশনই ব্যর্থ হয়ে যাবে। উপগ্রহের গতিবেগ যদি ঠিক থাকে তবে সে ঢুকে পড়বে চাঁদের কক্ষপথে। ১৫ দিন ধরে কক্ষপথে ঘোরার পরে উপগ্রহ নামবে চাঁদে। যদি সব ঠিকমতো চলে, তাহলে ৭ সেপ্টেম্বর চাঁদে অবতরণ করবে চান্দ্রায়ন-২।

ইসরোর চেয়ারম্যান ডি কে শিবন বলেন, চান্দ্রায়ন-২ যখন যাত্রা করে, তখন তার গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৩৯ হাজার ২৪০ কিলোমিটার। হাওয়ার মধ্যে দিয়ে আলো যে গতিতে ভ্রমণ করে উপগ্রহের গতিবেগ ছিল তার ৩০ গুণ। বিজ্ঞানীদের খুব সামান্য ভুল হলেই তা আর চাঁদে নামবে না।

বিজ্ঞানীদের কাজটা যে কত জটিল তা উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়েছেন ইসরোর স্যাটেলাইট সেন্টারের প্রাক্তন ডিরেক্টর এম আন্নাদুরাই। তিনি বলেন, ধরা যাক কোনও যুবক হাতে গোলাপ ফুল নিয়ে এক তরুণীকে বিবাহের প্রস্তাব দিতে যাচ্ছে। সেই তরুণী আছে ৩ লক্ষ ৮৪ হাজার কিলোমিটার দূরে। সে ঘণ্টায় ৩৬০০ কিলোমিটার বেগে নেচে চলেছে। তার সঙ্গে দেখা করতে হলে যুবকটিকে যেমন হিসাব কষে এগোতে হবে, আমাদের উপগ্রহকেও এখন তাই করতে হচ্ছে।

চান্দ্রায়ন-২ এর জন্য খরচ হয়েছে তুলনায় অনেক কম। মাত্র ১ হাজার কোটি টাকা। অন্যান্য দেশ উপগ্রহ নির্মাণের জন্য আরও বেশি খরচ করে। এর আগে রাশিয়া, আমেরিকা ও চিন চাঁদে উপগ্রহ পাঠিয়েছে। চান্দ্রায়ন-২ সফল হলে ভারত হবে চার নম্বর দেশ যে চাঁদে উপগ্রহ পাঠাতে পারল।

Comments are closed.