বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

জম্মু-কাশ্মীরের নতুন প্রশাসনিক কাঠামো গড়ার দায়িত্ব অজিত দোভালকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সোমবার রাজ্যসভায় ঘোষণা করা হয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ স্ট্যাটাস লোপ করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই নতুন প্রশাসনিক কাঠামো তৈরি করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে। জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর স্থানীয় মানুষ যাতে কোনও সমস্যায় না পড়েন, তা দেখার জন্য জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাকে শ্রীনগরে পাঠিয়েছে মোদী সরকার।

আশঙ্কা করা হয়েছিল, ৩৭০ ধারা বাতিল করলে কাশ্মীরিদের অনেকে ক্রুদ্ধ হবেন। সেই সুযোগে পাকিস্তান জম্মু-কাশ্মীরে শান্তি বিঘ্নিত করতে চাইবে। কিন্তু সেখানকার নিরাপত্তা খতিয়ে দেখার পরে অজিত দোভাল বলেন, সেখানকার জনগণ সংবিধানের ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার প্রস্তাবে খুশি হয়েছেন। জম্মু-কাশ্মীরে শান্তি ও স্থিতিশীলতা রয়েছে। কোথাও কোনও অশান্তি নেই। কেউ বিক্ষোভ দেখায়নি। মানুষ প্রয়োজন হলে বাইরে বেরোছেন।

অমিত শাহ বলেছেন, আমরা চাই না জম্মু-কাশ্মীর বরাবর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হয়ে থাকুক। অবস্থার উন্নতি হলে তা আবার রাজ্য হবে। অজিত দোভাল বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ওই ঘোষণায় স্থানীয় মানুষ আশ্বস্ত হয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারকে এক রিপোর্টে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জানিয়েছেন, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের ধারণা, কেন্দ্রীয় সরকার খুব ভেবেচিন্তেই পদক্ষেপ নিয়েছে। তাঁরা সরকারের পদক্ষেপকে সমর্থন করছেন।

লাদাখ ও জম্মু-কাশ্মীর, দু’টি প্রস্তাবিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রশাসনিক কাঠামো গড়ার জন্য অজিত দোভাল সেখানকার প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন।

সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাজ্যসভায় জানান, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করেছেন। একইসঙ্গে সরকার জম্মু-কাশ্মীরকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার জন্য একটি বিল পেশ করে।

রাজ্যসভায় অমিত শাহ ওই বিল পেশ করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পাকিস্তান বিবৃতি দিয়ে বলে, ভারতের পদক্ষেপ বেআইনি ও একতরফা। কাশ্মীরের স্পেশ্যাল স্ট্যাটাস কেড়ে নেওয়ার বিরুদ্ধে তারা আন্তর্জাতিক স্তরে জনমত সৃষ্টি করবে।

Comments are closed.