সীমান্তে শান্তি অধরাই, জম্মু-কাশ্মীর সফরে সেনাপ্রধান, খতিয়ে দেখবেন লাদাখ পরিস্থিতিও

২৫

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রক যতই আশ্বাস দিক, ভারত-চিনের সম্পর্কে কোনও অবনতি হয়নি, আর চিন যতই বলুক লাদাখ সীমান্তে শান্তি বজায় রাখতে তারাও সচেষ্ট, আদতে এ কথা স্পষ্ট, উত্তেজনার আঁচ বাড়ছে সীমান্তে। শীতল হচ্ছে কূটনৈতিক সম্পর্ক। শান্তি রক্ষায় আলোচনা যতই হোক, কার্যত দুপক্ষই চোখে চোখ রেখে দাঁড়িয়ে রয়েছে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর।

সব মিলিয়ে পরিস্থিতি বেশ জটিলই বলা যায়। সম্ভবত সে কারণেই বাস্তব চিত্র খতিয়ে দেখতে জম্মু-কাশ্মীর সফরে গেলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রধান এমএম নারাভানে। কাশ্মীর সফরের একটা বড় সময় পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি তিনি খতিয়ে দেখবেন বলে জানা গেছে। খোঁজখবর নেমেন ভারতীয় সেনার প্রস্তুতি ও তদের অবস্থানের বিষয়টি। এছাড়াও জম্মু কাশ্মীরের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়েও তিনি স্থানীয় অফিসারদের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকেও হঠাৎই একবার লাদাখ সফর করেছেন নারাভানে। অগস্টের শেষে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পার করে চিনা সেনাদের এগিয়ে আসা নিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে একদিনের সফরে চলে যান তিনি। সেনাদের অবস্থান খতিয়ে দেখেন ভাল করে। ফিল্ড কম্যান্ডররাও লাদাখের পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেন তাঁর কাছে।

এর পরে স্বল্প সময়ে পরিস্থিতি আরও খানিক বদলেছে। প্যাংগং লেকের দক্ষিণে ৪ নম্বর ফিঙ্গার পয়েন্ট দখল করেছে ভারতীয় সেনারা। এই মূহূর্তে ওই এলাকায় টহল দিচ্ছে গেরিলা যুদ্ধের প্রশিক্ষণ পাওয়া ভারতের দুর্ধর্ষ মাউন্টেন ফোর্স স্পেশাল ফ্রন্টিয়ারের কম্যান্ডোরা। লেহ-র কাছেই ভারতের বায়ুসেনা ঘাঁটি আছে। সেখান থেকে সুখোই-৩০এমকেআই, মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান ইতিমধ্যেই উড়ে এসেছে প্যাঙ্গং রেঞ্জে। হ্রদ পেরিয়ে বিপরীতে চুসুল রেজিমেন্টে টি-৯০ ভীষ্ম ট্যাঙ্ক ও টি-৭২ যুদ্ধট্যাঙ্ক তৈরি হয়েই আছে।

আবার দিন দশেক আগেই চিন দাবি করে মধ্যরাতে লাদাখের প্যাংগং লেকসংলগ্ন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে ভিতরে ঢুকে গুলি চালিয়েছে ভারত। যদিও ভারতীয় সেনা পাল্টা বিবৃতি দিয়ে জানায়, গুলি ভারতের তরফে চালানো হয়নি। চিনের লালফৌজই চালিয়েছিল গুলি। উস্কানি দিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার চেষ্টা করছিল তারা। এর সপক্ষে প্রমাণ দিয়ে ছবিও প্রকাশ করেছিল ভারতীয় বাহিনী।

তবে পাশাপাশিই রাজ্যসভায় বিবৃতি দিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, লাদাখে ভারতীয় ভুখন্ডের ৩৮ হাজার বর্গকিমি এলাকা বেআইনি ভাবে দখল করে রেখেছে চিন। ফলে তিনি দাবি করেন, পৃথিবীতে এমন কোনও শক্তি নেই যা ভারতীয় সেনাবাহিনীর রুটিন পেট্রলিং বন্ধ করে দিতে পারে। কেন্দ্রীয় সরকার সীমান্ত রক্ষায় সদা তৎপর রয়েছে। সেনাবাহিনীও সাহসিকতার সঙ্গে দেশ রক্ষার কাজ করে যাচ্ছে।

ফলে এই সমস্তটা মিলিয়ে সীমান্তের পরিস্থিতি আদৌ স্বাভাবিক নয় বলেই মনে করা হচ্ছে। সেনাপ্রধানের সফর সেই দিকেই আরও বেশি করে ইঙ্গিত করছে। বৃহস্পতিবার কাশ্মীরে পৌঁছে একদফা বৈঠকও সেরেছেন তিনি। এর পরে লাদাখের দিকে পৌঁছলে কী হয়, সেটাই এখন দেখার।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More