শুক্রবার, ডিসেম্বর ৬
TheWall
TheWall

ভোটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মাঝেই হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীকে ডেকে পাঠালেন অমিত শাহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : বিজেপি আশা করেছিল মহারাষ্ট্রের মতো হরিয়ানাতেও ভোটে সুইপ করবে। সকালের পর থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায়, তা সম্ভব হচ্ছে না। কংগ্রেসের সঙ্গে লড়াই হচ্ছে হাড্ডাহাড্ডি। সম্ভবত জেজেপির মতো আঞ্চলিক দলের সমর্থনই সরকার গড়ার জন্য নির্ণায়ক হয়ে উঠতে চলেছে। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার দুপুরে শোনা যায়, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী এম এল খট্টরকে দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়েছেন। পাশাপাশি হরিয়ানা বিজেপির প্রধান সুভাষ বারালা বলেছেন, খারাপ ফলের দায়িত্ব নিয়ে তিনি পদত্যাগ করতে চান।

এদিন দুপুরে ইন্দো টিবেটান বর্ডার পুলিশের কর্তাদের সঙ্গে অমিত শাহের বৈঠকে বসার কথা ছিল। কিন্তু তিনি বৈঠক বাতিল করেছেন। দুপুর পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, হরিয়ানা বিধানসভায় ৯০ টি আসনের মধ্যে দুপুর পর্যন্ত ৩৯টিতে এগিয়ে বিজেপি। কংগ্রেস এগিয়ে ৩৭ টিতে। একটি সূত্রে খবর, কংগ্রেস নেতারা জননায়ক জনতা পার্টির নেতা দূষ্যন্ত চৌতালার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। দুই দল জোট বেঁধে সরকার গড়ার কথা চলছে।

বিজেপি আশা করেছিল, এবার ৭৫ টি আসন পাবে। কিন্তু দুপুর পর্যন্ত যা ট্রেন্ড, তাতে স্পষ্ট যে, লক্ষ্যপূরণ করা সম্ভব হবে না। দলের মন্ত্রীরাও অনেকগুলি আসনে পিছিয়ে আছেন। হরিয়ানা বিজেপির সহ সভাপতি বিনয় সহস্রবুদ্ধে বলেন, আমাদের ভেবে দেখতে হবে, কেন লক্ষ্যে পৌঁছতে পারলাম না।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভোটের আগে বেশ কয়েকবার হরিয়ানায় প্রচার করে গিয়েছেন। তিনি রাজ্যে মোট সাতটি জনসভা করেছিলেন। মূলত জাঠ অধ্যুষিত অঞ্চলে তিনি প্রচারে জোর দেন। একটি সূত্রে খবর, বিজেপিও দূষ্যন্ত চৌতালার সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইছে। বিজেপির জোটসঙ্গী অকালি দলের নেতা প্রকাশ সিং বাদল দূষ্যন্তের বন্ধু। তাঁর মাধ্যমে গেরুয়া ব্রিগেডের নেতারা জেজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইছেন। রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র নবীন কুমার বলেছেন, শীঘ্রই ছবিটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। পরে তিনি বলেন, এবার যদি নাও হয়, ২০২৪ সালে আমরা নিশ্চয় ৭৫ টি আসন পাব।

Comments are closed.