বুধবার, অক্টোবর ১৬

BREAKING: এবিভিপি-র মিছিল যোধপুর পার্কে আটকাল পুলিশ, পড়ুয়াদের জমায়েত যাদপুরে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: যাদবপুর-কাণ্ডে সোমবার মিছিল ডেকেছিল অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ। পাল্টা জমায়েতের ডাক দিয়েছিল যাদবপুরের পড়ুয়ারা। কিন্তু গোলপার্ক থেকে শুরু হওয়া এবিভিপির মিছিল যোধপুর পার্কে আটকাল পুলিশ। ব্যারিকেড করে মিছিল আটাকায় পুলিশ। বেশ কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি হওয়ার পর রাস্তায় বসে পড়েন এবিভিপি সমর্থকরা। সঙ্ঘ পরিবারের ছাত্র সংগঠনের সঙ্গে সংঘর্ষে মাথা ফেটেছে এক পুলিশ কর্মীর।

এ দিন গেরুয়া শিবিরের মিছিল আটকাতে সকাল থেকেই প্রস্তুত ছিল পুলিশ। প্রস্তুত রাখা হয়েছিল জলকামান, টিয়ার গ্যাসের সেল। কিন্তু সে সব ব্যবহার করতে হয়নি পুলিশকে। ব্যারিকেডর সামনে বসে পড়ে অবস্থান শুরু করে এবিভিপি কর্মীসমর্থকরা।

এবিভিপির মিছিলের কথা শুনে রবিবারই পড়ুয়ারা ডাক দিয়েছিল পাল্টা জমায়েতের। তাঁদের সংহতি জানাতে এগিয়ে আসেন যাদবপুরের অধ্যাপক-অধ্যাপিকারাও। এ দিন সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর গেটে জমায়েত শুরু হয় পড়ুয়াদের। বেলা বাড়তে রাস্তায় নেমে আসে সেই জমায়েত। তৈরি হয় মানব শৃঙ্খল। এইট বি বাস স্ট্যান্ডের সামনে জমায়েত করে বামকর্মীরা।

এবিভিপির মিছিল যোধপুর পার্কে পৌঁছনোর পরই ইটবৃষ্টি শুরু হয়। পুলিশকে লক্ষ করে চলে ইটবৃষ্টি। আঘাত পান কয়েকজন পুলিশকর্মী। মাইকে ঘোষণা করা হতে থাকে পুলিশের পক্ষ থেকে। বেশ খানিকক্ষণ পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এবিভিপির দাবি, পুলিশের লাঠির ঘায়ে তাদের সাত জন কর্মী আহত হয়েছেন।

রবিবার দুই জমায়েতের কথা শুনে অনেকেই অশান্তির আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। অশান্তি আটকানো চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল পুলিশের সামনে। এ দিন সকাল থেকেই তাই কোমর বেঁধে নেমেছিল প্রশাসন। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় এক কিলোমিটার আগে আটকে দেওয়া হয় মিছিল। যাতে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি না হয়।

Comments are closed.