শুক্রবার, জুলাই ১৯

পুরস্কৃত অফিসারের বাড়ি থেকে উদ্ধার ১ কোটির বেআইনি সম্পদ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : দু’বছর আগে ‘সেরা তহশিলদার’ হিসাবে পুরস্কার পেয়েছিলেন তেলঙ্গনা সরকারের রাজস্ব অফিসার ভি লাবণ্য। বৃহস্পতিবার তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে নগদ ও সোনার গয়না মিলিয়ে ১ কোটি টাকার বেআইনি সম্পদ উদ্ধার করল দুর্নীতি দমন ব্যুরো। এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে রাজ্য জুড়ে।

কিছুদিন আগে লাবণ্যর জুনিয়র অফিসার অন্তাইয়া এক কৃষকের থেকে চার লক্ষ টাকা ঘুষ নিতে গিয়ে ধরা পড়েন। সেই কৃষকের নাম ভাস্কর। তাঁর জমির রেকর্ড ঠিক করে দেওয়ার জন্য ওই টাকা চাওয়া হয়েছিল।

অভিযোগ, অন্তাইয়া মোট আট লক্ষ টাকা ঘুষ চেয়েছিলেন। তার মধ্যে লাবণ্যর পাওয়ার কথা ছিল পাঁচ লক্ষ। বাকি টাকা অন্তাইয়ার পাওয়ার কথা। এর আগে ভাস্কর পাসবই তৈরি করার জন্য অন্তাইয়াকে ৩০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। পরে জমির রেকর্ড ঠিক করার জন্য অন্তাইয়া যখন আট লক্ষ টাকা চাইলেন, তখন তিনি অ্যান্টি করাপশান ব্যুরোতে যোগাযোগ করেন। ব্যুরোর অফিসাররা গোপনে অন্তাইয়ার ওপরে নজর রাখতে থাকেন। তিনি ভাস্করের থেকে চার লক্ষ টাকা নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ধরা পড়েন। তাঁকে জেরা করে লাবণ্যকেও আটক করা হয়।

লাবণ্য বার বার বলতে থাকেন, তিনি ঘুষ নেননি। কিন্তু ব্যুরোর অফিসাররা তাঁর হায়দরাবাদের বাড়িতে তল্লাশি করেন। সেখানে নগদ ৯৩ লক্ষ ৫ হাজার টাকা ও ৪০০ গ্রাম সোনা পাওয়া যায়। তাঁর গাড়ির মধ্যে ন’জন পাট্টাদারের পাসবই পাওয়া যায়। সন্দেহ করা হচ্ছে, তিনি কৃষকদের পাসবই আটকে রেখে ঘুষ চাইতেন।

তল্লাশির পর লাবণ্যকে গ্রেফতার করা হয়। সেই সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। তাতে দেখা যায়, এক কৃষক লাবণ্যর পায়ে পড়ে মিনতি করছেন। তাঁর নাম নরসুলু। তিনি জমির রেকর্ড ঠিক করে দেওয়ার আবেদন জানাচ্ছিলেন।

Comments are closed.