বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৮

শিক্ষক দিবসের সকালে উদ্ধার স্কুল শিক্ষিকার রক্তাক্ত দেহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা: দুই দিন নিখোঁজ থাকার পর আজ শিক্ষক দিবসের সকালে উদ্ধার হল এক শিক্ষিকার দেহ। এই ঘটনায় তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়েছে হবিবপুর থানার মঙ্গলপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের খোঁচাকান্দর এলাকায়। গ্রামের একটি পুকুর থেকে ওই শিক্ষিকার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মৃতের পরিবারের দাবি, ধর্ষণ করে তাঁকে খুন করেছে দুষ্কৃতীরা। জেলার শিক্ষা মহলেও ব্যাপক অসন্তোষ ছড়িয়েছে। হবিবপুর থানার আইসি ত্রিদিব প্রামাণিক জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দুষ্কৃতীদের খোঁজ চালানো হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত শিক্ষিকার নাম সনকা মণ্ডল (২৪)।  তাঁর বাড়ি হবিবপুরের উলতারা গ্রামে। দেড় বছর আগে খোঁচাকান্দর গ্রামের ভবানী মণ্ডলের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল সনকার। ভবানীবাবু বর্তমানে চাকরিসূত্রে কেরলে।

মঙ্গলপুরা গ্রামের একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে শিক্ষকতা করতেন সনকা। প্রতিদিন সাইকেল চালিয়ে যেতেন বাড়ি থেকে দুই কিলোমিটার দূরের ওই স্কুলে। মঙ্গলবার সকালে প্রতিদিনের মতোই সাইকেল নিয়ে রওনা হন স্কুলের উদ্দেশে। এরপর তিনি আর বাড়ি ফিরে আসেননি। শ্বশুরবাড়ি এবং ওই শিক্ষিকার বাবার বাড়ির লোকজন দু’দিন ধরে খোঁজাখুঁজির করেও হদিশ পাননি তাঁর। বৃহস্পতিবার সকালে খোঁচাকান্দর গ্রামেরই একটি পুকুর থেকে ওই বধূর ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

সনকার বাবা মণি মণ্ডল এবং মা দময়ন্তী মণ্ডল বলেন, ‘‘শ্বশুর বাড়িতেই থাকতো আমার মেয়ে। সেখান থেকেই স্কুলে পড়াতে যেত। মঙ্গলবার স্কুল থেকে আর বাড়ি ফিরে আসেনি ও। বুধবার সকালে গ্রামের রাস্তার ধারে ঝোপের মধ্যে লেডিস সাইকেল, জুতো পড়ে থাকতে দেখেছিলেন কয়েকজন। তারাই আমাদের খবর দিয়েছিলেন। বুধবার সে সব উদ্ধার করে পুলিশের কাছে জমা দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে গ্রামবাসীদের থেকেই মেয়ের দেহ পড়ে থাকার কথা জানতে পারি।’’

সনকার শ্বশুর জিতেন মণ্ডল বলেন, ‘‘কেন এমন নৃশংসভাবে আমার পুত্রবধূকে মারা হলো কিছুই বুঝতে পারছি না। আমাদের কোনও শত্রু ছিল না। কারও সঙ্গে কোনওদিন বিবাদ হয়নি।’’

হবিবপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে,  ওই শিক্ষিকার মুখে কয়েকটি জায়গায় বড় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শরীরের বিভিন্ন জায়গাতেও আঘাত রয়েছে। মৃতের পরিবার দাবি করেছে ধর্ষণ করে খুন করা হয়ে থাকতে পারে তাঁকে। যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে কিছু বলা যাচ্ছে না।

শিক্ষিকা খুনের ঘটনায় তোলপাড় হবিবপুর এলাকা। মালদা জেলা শিক্ষক ও অশিক্ষক সমিতির সম্পাদক আইনুল ইসলাম জানিয়েছেন , অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছেন তাঁরা।

Comments are closed.