শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

বিষমদে উত্তরপ্রদেশে মৃত ৪৪, অসুস্থ আরও অনেকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : বিষমদ পান করে গত তিন দিনে উত্তরপ্রদেশে মারা গিয়েছেন ৪৪ জন। তাঁদের মধ্যে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুর জেলায়। অপর আটজনের মৃত্যু হয়েছে পূর্ব উত্তরপ্রদেশের কুশীনগরে। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন প্রায় দু’ডজন মানুষ। তাঁদের অনেকের অবস্থা গুরুতর। ডাক্তাররা বলেছেন, মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

সাহারানপুর পুলিশের বক্তব্য, তাদের জেলার মানুষ উত্তরাখণ্ডে এক ব্যক্তির শেষকৃত্যে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। সেখানে তাঁরা বিষমদ পান করেন। পরে উত্তরাখণ্ড থেকে গোপনে বিষ মদ সাহারানপুরে আনেন আর এক ব্যক্তি। তিনি অন্যদের বিক্রি করেন। অন্যদিকে কুশীনগরে বিষমদ এসেছিল সম্ভবত বিহার থেকে। বিহারে মদের ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা আছে। কিন্তু তার পরেও সেখানে গোপনে চোলাই মদ তৈরি হয়।

সাহারানপুরের জেলাশাসক এ কে পাণ্ডে বলেন, আরও আগে চিকিৎসা শুরু হলে এত লোক মরত না। পিন্টু নামে এক ব্যক্তি উত্তরাখণ্ড থেকে চোলাইয়ের ৩০ টি পাউচ এনেছিল। সেগুলি স্থানীয় মানুষের মধ্যে বিক্রি করে। একটা-দু’টো পাউচ পুলিশ উদ্ধার করেছে। বাকি পাউচগুলির মদ পান করে অনেকে মারা গিয়েছেন। বাকিরা আছেন হাসপাতালে।

অতজনের মৃত্যুর খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন, অবিলম্বে চোলাই মদের কারবারীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে হবে। সেইমতো পুলিশ শুরু করেছে চোলাই বিরোধী অভিযান। রাজ্যের নানা জায়গায় চোলাইয়ের সন্ধানে চলছে তল্লাশি। বিপুল পরিমাণে মদ আটক করা হয়েছে।

সাহারানপুরের পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার বলেন, বিষমদ কাণ্ডে জড়িত সকলকেই আমরা গ্রেফতার করব। তারা উত্তরাখণ্ডে থাকুক কিংবা উত্তরপ্রদেশে, শেষ অবধি ধরা পড়বেই। বিষমদে এত মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আমরা উত্তরাখণ্ডের সীমান্তে তল্লাশি চালাচ্ছি। কোথায় বেআইনিভাবে মদ তৈরি হয়, তার খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

কুশীনগরের জেলা এক্সাইজ ইনস্পেকটর ও এক্সাইজ অফিসারকে ইতিমধ্যে সাসপেন্ড করা হয়েছে। আরও কয়েকজন পুলিশ অফিসারকেও সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে ৩০ জন। তাদের বিরুদ্ধে গ্যাংস্টার আইন ও জাতীয় নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে। ধৃতরা সকলেই চোলাই মদ তৈরি এবং বিক্রিতে জড়িত।

২০১১ সাল থেকে উত্তরপ্রদেশে বিষমদে মৃত্যু হয়েছে ১৭৫ জনের। যোগী আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরে বিষমদের ট্র্যাজেডি ঘটেছে চারবার।

Shares

Comments are closed.