বুধবার, জুন ১৯

লটারির নেশায় ঋণের বোঝা, রেললাইনে মিলল দম্পতির ছিন্নভিন্ন দেহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পুরুলিয়া : রেল লাইন থেকে উদ্ধার হল স্বামী স্ত্রীর ক্ষতবিক্ষত দেহ। পড়শিদের অনুমান, ঋণের দায়ে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই দম্পতি। তবে মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পুরুলিয়া স্টেশন সংলগ্ন কার্টিন রেলগেটের কাছ থেকে ওই দম্পতির ছিন্নভিন্ন হয়ে যাওয়া দেহ উদ্ধার করে পুরুলিয়ার জিআরপি থানার পুলিশ। মৃত শেখর কর্মকার (৬৫) ও বাণী কর্মকার (৫৫) নাপিতপাড়ার গৌরমোহন কর লেনের বাসিন্দা বলে জানা গেছে। এখানে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তাঁরা।

ওই বাড়ির মালিক ভোলানাথ প্রামাণিক জানান, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী ছিলেন শেখরবাবু। বাণীদেবী নাপিতপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকতা করতেন। ভোলানাথবাবু নিজেও একসময় ওই স্কুলে পড়াতেন। সেই সূত্রেই ওই দম্পতিকে বাড়ি ভাড়া দিয়েছিলেন তিনি।  তাঁর কথায়, ” শুনেছি, দীর্ঘদিন ধরে লটারির টিকিট কিনে, ঋণে জর্জরিত হয়ে পড়েছিলেন ওই দম্পতি। তাই স্কুলের বেতনের টাকাতেও আর চলছিল না। তবে দুজনেই খুব চাপা স্বভাবের ছিলেন। কাউকে কোনওদিন কিছু জানতে দেননি।”

ঋণের পরিমাণ এতটাই হয়ে গিয়েছিল যে পাওনাদাররা বিভিন্নভাবে তাঁদের উপর চাপ দিচ্ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। এই ঋণের দায়েই নিজেদের ভিটে বিক্রি করে ভাড়া চলে এসেছিলেন বলে জানিয়েছেন পড়শিরা। তাই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন। ওই দম্পতির দুই মেয়েই বিদেশে থাকে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

এ দিন স্কুলে যাওয়ার সময়েই বাণীদেবী বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন তাঁদের বাড়ির মালিক ভোলানাথবাবু। শেখরবাবু কখন বেরিয়েছিলেন তা খেয়াল করেননি কেউ। গভীর রাতে পুলিশের কাছ থেকে এই ঘটনার কথা জানতে পারেন তাঁরা। মৃত দম্পতির মেয়েদের খবর পাঠানোর চেষ্টা করছেন প্রতিবেশীরা।

Comments are closed.