বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮

কান ধরে ওঠবস করিয়ে বাধ্য করা হয়েছিল জয় শ্রীরাম বলতে, অভিযুক্ত পাকড়াও

দ্য ওয়াল ব্যুরো, কোচবিহার : জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করা হয়েছিল তাঁকে। এখানেই শেষ নয়, ভরা হাটে তাঁকে কান ধরে ওঠবসও করানো হয়েছিল বলে অভিযোগ। প্রায় এক মাস পরে সে ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। আদালতে তোলা হলে অভিযুক্তকে তিনদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।

অভিযোগ, গত ৩০ মে তুফানগঞ্জ মহকুমার ধলপলে কান ধরে ওঠবস করানোর পরে জয় শ্রীরাম বলতে বাধ্য করা হয়েছিল এলাকার বাসিন্দা আসগর শেখকে। সেই ঘটনায় গতকাল পুলিশে অভিযোগ দায়েরের পর আজ পুলিশ অভিযুক্ত আপসি মিয়াঁকে গ্রেফতার করে। অভিযুক্তও ওই গ্রামেরই বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

তৃণমূলের অভিযোগ, ওই ব্যক্তি এলাকার পরিচিত বিজেপি কর্মী। লোকসভা ভোটের ফল বেরোনোর পর গোটা এলাকায় দাপিয়ে বেড়িয়েছে বিজেপি। তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের মারধর, নিগ্রহ করা হয়েছে। গত ৩০ মে তারা চড়াও হয়েছিল আসগরের উপর। তাঁকে কানধরে ওঠবস করানো ও জোর করে জয় শ্রী রাম বলানো হয়। সেই ছবি পরে ভাইরাল হয়ে যায়।  তোলপাড় শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে।

যদিও এ অভিযোগ মানতে চাননি বিজেপির জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা। তিনি বলেন, যারা এ কাজ করেছে, তাঁরা সবাই তৃণমূলেরই লোক। বিজেপিকে কালিমালিপ্ত করতেই অভিযোগের তির তাঁদের দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ঘটনার সঙ্গে বিজেপির কোনও যোগ নেই বলে দাবি করেন তিনি। এমনকী ওই ঘটনায় অভিযুক্তের সঙ্গেও বিজেপির কোনও সম্পর্ক নেই বলে জানান তিনি।

এ দিকে সিপিএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, “এ সমস্ত সংস্কৃতি এ রাজ্যের নয়। এমন ঘটনা পশ্চিমবঙ্গে আগে কখনও ঘটেনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরেই বিজেপির এই বাড়বাড়ন্ত। আর এই দুই শক্তির আষ্ফালনেই ফলশ্রুতিতেই এখন সামনে আসছে এমন ছবি।”

Comments are closed.