বৃহস্পতিবার, জুন ২৭

চুরি করতে এসে গৃহকর্তাকে বেধড়ক মার, মুখ বন্ধ করতে জিভ কেটে দিল চোর

দ্য ওয়াল ব্যুরো, ভগবানপুর: গৃহকর্তা সুদের কারবারি। ঘরে লক্ষ লক্ষ টাকার সোনার গয়না মজুত, সেই সঙ্গে নগদ টাকাও। সব জেনে শুনেই ফাঁদ পেতেছিল চোর। মুখ ঢেকে আসলেও তাকে চিনে ফেলেছিলেন গৃহকর্তা। তারই খেসারত দিতে হল তাঁকে। আলমারি ফাঁকা করার পাশাপাশি গৃহকর্তার জিভও কেটে দিয়ে গেল চোর।

পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর থানার শ্যামচক এলাকার বাসিন্দা বৃন্দাবন দাস নামে ওই ব্যক্তির অবস্থা গুরুতর। তমলুক জেলা হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার নাম গৌরহরি।

জেরায় সে জানিয়েছেন, বৃন্দাবনবাবুর বাড়িতে চুরি করার ফন্দি অনেকদিন ধরেই করছিল সে। বৃন্দাবনবাবু সুদের কারবারি। বাড়িতেই লেনদেনের যাবতীয় টাকা ও গয়না রাখেন তিনি। আড়াল আবডাল থেকে দীর্ঘদিন ধরেই বৃন্দাবনবাবুর বাড়ির দিকে নজর রেখে বসেছিল সে। সোমবার রাতের দিকে মুখে কাপড় বেঁধে বাড়িতে ঢোকে গৌরহরি।

তবে বিধি বাম, বৃন্দাবনবাবু জেগেই ছিলেন। গৌরহরিকে তিনি চিনেও ফেলেন। প্রথমে হুমকি ও পরে ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে বৃন্দাবনবাবুকে ভয় দেখায় গৌরহরি। চিৎকার করতে বারণ করে। তা সত্ত্বেও গৃহকর্তা ভয়ে চিৎকার করে উঠলে ছুরি দিয়ে তাঁর জিভ কেটে দেয় গৌরহরি।তাঁকে বেধড়ক মারধরও করে। পরে গোঙানি বন্ধ করতে মুখে গামছা বেঁধে দিয়ে চুরির কাজ সারে চোর।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বৃন্দাবনবাবুকে হাত, মুখ বাঁধা অবস্থায় মাটিতে পড়ে কাতরাতে দেখেন এলাকার বাসিন্দারাই।  প্রথমে তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় তমলুক জেলা হাসপাতালে।  মঙ্গলবার সকালে  এলাকারই একটি মন্দিরের কাছ থেকে গৌরহরিকে পাকড়াও করে স্থানীয়েরা।  মন্দিরের সামনে বেঁধে রেখে তাকে মারধরও করা হয়।  পরে পুলিশ এসে তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়।

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

 

Comments are closed.