মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

মাসাইমারার ‘জঙ্গলের মধ্যে এক হোটেল’-এ সন্তু-কাকাবাবু, আসছে সৃজিতের নতুন ছবি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: Don’t go to Masai-Mara! অথচ কাকাবাবুকে নিয়ে সৃজিত যাচ্ছেন সেখানেই।

নাইরোবিতে পৌঁছে মাসাইমারা না যাওয়ার জন্য এমনই হুশিয়ারি পেয়েছিলেন রাজা রায়চৌধুরি। দুর্ঘটনায় ক্রাচ নিয়ে হাঁটা এই বাঙালি প্রৌঢ়, তাতে ভয় পাননি মোটেই। বরং ভাইপো সন্তুকে নিয়ে হাজির হয়েছিলেন মাসাইমারার ঘন জঙ্গলের মধ্যে এক হোটেলে। আর তারপর? চোরাশিকারীদের রুখে দেওয়া এক মাসাইবৃদ্ধের সঙ্গে দেখা হয়েছিল তাঁর।

১৯৮৬ সালে শারদীয়া আনন্দমেলাতে ছাপা হওয়ার পরেই ছোটদের মন জিতে নিয়েছিল সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের লেখা সন্তু কাকাবাবুর এই অ্যাডভেঞ্চার।

এ বার সেই গল্প নিয়েই ছবি করছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। নাম ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন।’

এই আফ্রিকাতে প্রথমবার দেখা গিয়েছিল সৃজিতের কাকাবাবুকে। তবে জঙ্গলে নয় মিশরের মরুভূমির মধ্যে এক পিরামিডের রহস্য ভেদ করেছিলেন তিনি। মাঝে এভারেস্টের বরফের মধ্যে ‘ইয়েতি অভিযান’ করার পর, এবার কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন হচ্ছ সেই আফ্রিকাতেই।

মাত্র কয়েকদিন হলো রিলিজ হয়েছে সৃজিতের নতুন ছবি ‘শাহজাহান রিজেন্সি’-র ট্রেলর। পরিচালক আগেই জানিয়েছিলেন, শঙ্করের বিখ্যাত উপন্যাস ‘চৌরঙ্গী’ অবলম্বনেই তৈরি হয়েছে এই ছবি। একেবারে মাল্টিস্টারার ছবি। টলিউড ইন্ডাস্ট্রির কে নেই এই ছবিতে? মুক্তি পেয়েছে অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্যের গলায় ছবির প্রথম গানও। এর মধ্যেই আবার চলছে সৃজিতের আরেকটি ছবি কাজ। নাম ‘ভিঞ্চিদা’। সদ্যই এই ছবির ডাবিংয়ের কাজ শেষ করেছেন অভিনেত্রী সোহিনী সরকার। আর এই দুই ছবির ব্যস্ততার মাঝেই বড়দিনে নিজের নতুন ছবির কথা জানালেন পরিচালক।

২০১৯-এ সৃজিতের সৌজন্যে দর্শকদের পাতে পড়বে ‘শাহজাহান রিজেন্সি’ এবং ‘ভিঞ্চিদা’। এখন জানা যাচ্ছে, এই মেনুতে সংযোজন হতে পারে ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’-এরও।

আগামী বছরের মে-জুন মাসে কেনিয়ার মাসাইমারায় শুরু হবে শ্যুটিং। সেই মসাইমারা, যেখানে বন্যপ্রাণী দেখতে ভিড় করেন গোটা বিশ্বের ওয়াইল্ড লাইফ এনথিজিয়াস্টরা। সেইখানেই যখন শুটিং, তখন নিশ্চয় দেখা মিলবে সিংহ, হাতি, জিরাফ বা জেব্রার। এমনই আশা দর্শকদের। সেই সঙ্গে, জঙ্গলের মধ্যে রহস্যের সমাধানে, কাকাবাবুর ক্ষুরধার বুদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পাওয়ার প্যাক্ট অ্যাকশন দেখা যাবে বলেও মনে করছেন সৃজিতের ছবির ভক্তরা।

তবে এর আগে রিলিজ হওয়া কাকাবাবু সিরিজের আগের দুই ছবি, ‘মিশর রহস্য’ এবং ‘ইয়েতি অভিযান’ নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। বক্স অফিসে জমিয়ে ব্যবসা করলেও এ ছবি দেখে নাক সিঁটকেছিলেন অনেকেই।

‘মিশর রহস্য’ দেখে অনেকেই বলেছিলেন মূল গল্পটারই বারোটা বাজিয়ে দিয়েছেন পরিচালক। আর ‘ইয়েতি অভিযানে’ অসাধারণ লোকেশন বেশিরভাগ দর্শকের মন জয় করলেও, ক্যামেরার অতিরিক্ত কারিকুরি এবং চড়া ভিএফএক্স দর্শকদের একটা অংশের বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে নতুন ছবিতে নিশ্চয় নতুন রূপেই আসবেন কাকাবাবু। তাই তো অন্যান্য বার ছবির নাম আর গল্পের নাম এক থাকলেও, এ বার ছবির নামে এসেছে পরিবর্তন।

দর্শকদের আশা, পুরনো সব খুঁত মিটিয়ে সম্ভবত আগামী বছর পুজোতেই ফের সিলভার স্ক্রিন জমাতে হাজির হবেন কাকাবাবু। সঙ্গে থাকবে তাঁর অ্যাসিস্ট্যান্ট সন্তু। কাকাবাবুর নতুন ছবিতে আর কী কী চমক রেখেছেন পরিচালক, তা চাক্ষুষ করা এখন শুধুই সময়ের অপেক্ষা।

Comments are closed.