শনিবার, জানুয়ারি ২৫
TheWall
TheWall

দিঘায় এসে মোবাইল হারালে চিন্তা নেই, পাশে আছে সাইবার সেল

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব মেদিনীপুর : ছ মাস আগে দিঘায় বেড়াতে এসে ৬৮ হাজার টাকা দামের অ্যানড্রয়েড মোবাইল ফোনটি খুইয়ে ফেলেছিলেন বারাসতের বাসিন্দা ঋত্বিক সাউ। সমুদ্রে স্নান করার পর উঠে সৈকতে রেখে যাওয়া ব্যাগে রাখা মোবাইল ফোন খুঁজে পাননি ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা মজফফর খান। গত মাসের চার তারিখ। ফিরে পাওয়ার আশা না করেই নিয়মমাফিক পুলিশকে জানিয়ে ফিরে গিয়েছিলেন যে যাঁর বাড়ি।

হঠাৎই তমলুক থানা থেকে ফোন। “২৬ শে জুলাই রামনগর থানায় এসে আপনার মোবাইল ফেরত নিয়ে যান।” সেই ফোন পেয়েই আজ সকালে রামনগর থানায় ছুটে এসেছিলেন ঋত্বিক সাউ, মজফফর খানরা। কেবল তাঁরা দুজন নন, মোবাইল খোয়া গিয়েছে এমন ২২ জনের হাতে তাঁদের হারানো ফোন উদ্ধার করে এ দিন তুলে দিল পুলিশ।

চাইলে পুলিশ কী না পারে ? ফোন ফিরে পেয়ে এমনটাই বলছেন তাঁরা।

এ বার আসা যাক আসল গল্পে। কী ভাবে খোয়া যাওয়া মোবাইলগুলি খুঁজে পেল পুলিশ ?

দিঘা, মন্দারমনি, শঙ্করপুর, তাজপুরের সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে আসা পর্যটকদের কথা ভেবেই তমলুক থানায় সম্প্রতি সাইবার সেল খোলে পুলিশ। মোবাইল খোয়া যাওয়ার সমস্ত অভিযোগই পাঠানো হয় এখানে। এই সমস্ত মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন নিশ্চিত করে প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে বার্তা পাঠায় পুলিশ। “এটি অন্যের মোবাইল। আপনি বেআইনি ভাবে ব্যবহার করছেন। খুব তাড়াতাড়ি ফেরত দিন, না হলে ব্যবস্থা নিয়ে বাধ্য হবে পুলিশ। নিজে এসে ফেরত দেওয়ার দরকার নেই। ক্যুরিয়র করে রামনগর থানায় পাঠান।” পুলিশ জানিয়েছে, এই বার্তায় সাম্প্রতিক কালে খোয়া যাওয়া ৫০টি দামি মোবাইল ফোনের মধ্যে ৩৪টি মোবাইল ফোন ফেরত এসেছে থানায়। এরপরেই থানা থেকে মোবাইল ফোন ফেরত নেওয়ার জন্য আসল মালিকদের ডাক পাঠানো হয়। শুক্রবার মোবাইল ফেরত নিয়ে গেলেন ২২ জন।

কাঁথির মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সৈয়দ মহম্মদ মম্মাদুল হাসান জানান, চোর যেমন চুরি যাওয়া মোবাইল বিক্রি করে, তেমন কম দামে পাওয়া দামি মোবাইল ফোন ব্যবহারের লোভ সামলাতে না পেরে তা কিনেও ফেলেন অনেকে। কিন্তু এখনকার অ্যানড্রয়েড ফোন এতই উন্নত যে তাতে তথ্য গোপন সম্ভব নয়। তিনি বলেন. “আমাদের সাইবার সেলের কর্মীরা অচিরেই খোয়া যাওয়া মোবাইল ফোনের বর্তমান ব্যবহারকারীকে চিহ্নিত করে ফেলেন। বেশিরভাগ ফোনই ব্যবহার হচ্ছিল ভিন রাজ্যে। পুলিশের আবেদনে সাড়া দিয়ে ৩৪ টি ফোন ইতিমধ্যেই ক্যুরিয়রের মাধ্যমে ফেরত এসেছে থানায়। যারা পাঠাননি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

ফোন ফিরে পেয়ে বারাসতের বাসিন্দা ঋত্বিকবাবু বলেন, “ফোন হারানোর পরে পুলিশকে জানিয়েছিলাম ঠিকই, কিন্তু সত্যিই ভাবিনি ফেরত পাবো। পুলিশ চাইলে কী না পারে।”

Share.

Comments are closed.