রবিবার, অক্টোবর ২০

বন্দুক হাতে তৃণমূলের বাইক মিছিল, নেতা বললেন ‘খেলনা’

 দ্য ওয়াল ব্যুরো, বীরভূম : এলাকায় রীতিমতো সাড়া ফেলে দেওয়া বাইক মিছিল। বাইকে বসা এক আরোহীর হাতে উঁচানো ওয়ান শটার। আজ সকালে শাসক দলের এমনই মিছিল দেখলেন সাঁইথিয়ার মানুষ। এমন দিনে, যে দিন আবার নির্বাচন কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক নিজে উপস্থিত সেখানে।

২৯ তারিখ ভোট মাঝে হাতেগোনা চারদিন। তাই তুঙ্গে উঠেছে প্রচার। বীরভূম জেলা জুড়েই। সেই শেষবেলার প্রচারে বাইক মিছিল করেই ক্ষান্ত রইল না শাসকদল। রীতিমতো বন্দুক উঁচিয়ে তারা এলাকায় দাপিয়ে বেড়ায় বলে অভিযোগ।

আজ সকাল ১১টা নাগাদ বীরভূম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়ের সমর্থনে বাইক মিছিল বার হয়েছিল সাঁইথিয়ার হরিসরা গ্রাম পঞ্চায়েতে। নেতৃত্বে ওই এলাকারই দলের অঞ্চল সভাপতি প্রশান্ত মণ্ডল। তৃণমূলের প্রায় শ তিনেক কর্মী সমর্থক ওই মিছিলে যোগ দেন বলে জানা গেছে। সকাল সকাল সেই মিছিলেই দেখা যায় বাইকে বসা একজনের হাতে ধরা রয়েছে একটি ওয়ান শটার। প্রকাশ্যে এমন অস্ত্র হাতে মিছিলে সন্ত্রস্ত এলাকার মানুষ। বিজেপির দাবি, এলাকার মানুষ যাতে সন্ত্রস্ত হন, ভোট দিতে না যান তার জন্য হুমকি দেওয়া শুরু হয়ে গেছে। তবে যাঁর নেতৃত্বে মিছিল হল, সেই প্রশান্তবাবু অবশ্য এমন অভিযোগ মানতে নারাজ। অস্ত্র হাতে নিয়ে কেউ তাঁর ডাকা বাইক মিছিলে সামিল হয়েছেন, এটা প্রথমে মানতেই চাননি তিনি। পরে বলেন, “এক কর্মীর হাতে বন্দুক বা পিস্তল ছিল, তবে সেটা আসল নয়। খেলনা।”

অন্যদিকে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সাবের আলি জানান, “আজ আমরা পর্যাপ্ত অনুমতি নিয়েই বাইক মিছিলের আয়োজন করেছিলাম। বাইক মিছিল থেকে বন্দুক নিয়ে ভয় দেখানো হয়েছে এমন কোনও বিষয় আমি জানি না। তবে এমন ঘটনা যদি ঘটে থাকে, তাহলে সে আমাদের দলীয় কর্মী কেউ হবে না। তৃণমূলকে বদনাম করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে এমন ঘটনা ঘটানো হয়েছে।”

আজই বীরভূমে এসেছেন নির্বাচন কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক। শান্তিপূর্ণ ভোটের জন্য সমস্ত রাজনৈতিক দল ও প্রশাসনের কর্তাদের নিয়ে বৈঠক করছেন তিনি। বিজেপির সিউড়ি শহর সম্পাদক সুরজিৎ বসু বলেন, “গোটা জেলাতেই তৃণমূলের সন্ত্রাস চলছে। আজকের ঘটনা তারই প্রমাণ। আমরা কমিশনের  বিশেষ পর্যবেক্ষককে বিষয়টা জানিয়েছি। আমাদের দলের রাজ্য শাখাতেও ঘটনার কথা জানিয়েছি।”

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটির তদন্ত চলছে।

Comments are closed.