বুধবার, জুন ১৯

জোট হলে এ ভাবে হারতে হত না, আক্ষেপ মৌসমের

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা : কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে গিয়েও শেষরক্ষা করতে পারেননি। উত্তর মালদা কেন্দ্রে ৮৪,২৯৮ ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মুর কাছে পরাজিত হয়েছেন। তারপরেই শুরু হয়েছে কারণ নিয়ে কাঁটাছেড়া।

মৌসম বেনজির নুর নিজে মনে করেন দেশজুড়ে ওঠা গেরুয়া ঝড়ের মোকাবিলা একমাত্র সম্ভব ছিল মহাজোট করে। শুক্রবার মালদহে নিজের দফতরে বসে মৌসম নুর বলেন, “এ রাজ্যেও কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না করাটা আমাদের ঠিক হয়নি। তা হলে এমন রেজাল্ট হত না। আমি যখন কংগ্রেসে ছিলাম, তখন কংগ্রেস নেতৃত্বকে বলেছিলাম, পরেও বলেছি। কিন্তু কংগ্রেস হাইকমান্ডের নেতারা তা শোনেননি। তবে আমাদের দলের নেত্রী বুঝেছিলেন বলেই মহাজোট করতে চেয়েছিলেন। তাঁর কথাও কংগ্রেস শোনেনি। এখন কী হল, সবারই ক্ষতি হল।”

বিজেপির প্রার্থী খগেন মুর্মুর কাছে পরাজিত মৌসম বলেন, “আমি হেরে গিয়েছি। এতে আমার খুব কষ্ট হচ্ছে। দুঃখ হচ্ছে। তাও আমি দমে যাব না। লড়াই করে যাব।”

উত্তর মালদা লোকসভা আসনে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু পেয়েছেন ৫,০৯,৫২৪ টি ভোট। মৌসমের প্রাপ্ত ভোট ৪,২৫,২২৬টি।  খগেনবাবু জয়ী হয়েছেন ৮৪,২৯৮ ভোটের ব্যবধানে। কংগ্রেসের দু’বারের সাংসদ মৌসম এ বারের লোকসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল শিবিরে যোগ দেন। বিজেপিকে রুখতে সেই সিদ্ধান্ত নিলেও শেষমেশ কাজে এল না তা। এতদিন এই উত্তর মালদা কেন্দ্র কংগ্রেসের দখলে থাকলেও এ বার কংগ্রেস এই আসনে তৃতীয় শক্তি। গনি পরিবারের সদস্য কংগ্রেস প্রার্থী ঈশা খান চৌধুরী ৩,০৫,২৭০ টি ভোট পেয়ে রয়েছেন তিন নম্বরে।

বৃহস্পতিবার হারের ধাক্কা সামলেছেন মৌসম। শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে কারণ খোঁজার পালা। তাঁর কথায়, “আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে পুরো পরিস্থিতি। যে ট্রেন্ড চলছে, তা দেশের জন্য ঠিক নয়। সেই জন্যই মহাজোট চেয়েছিলাম। তবে এ বারে শিক্ষা নিয়েছি। আশা করছি, আগামীদিনে সেই শিক্ষা কাজে লাগাতে পারবো।”

Comments are closed.