মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১০
TheWall
TheWall

#Breaking: বারাসাত আদালতে জামিনের আবেদন রাজীব কুমারের, আগামীকাল শুনানির সম্ভাবনা

  • 81
  •  
  •  
    81
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো : হাইকোর্টের নির্দেশে রক্ষাকবচ উঠে গিয়েছে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের। তারপরেই সিবিআই-এর তরফে তাঁকে হাজিরার নোটিসও পাঠানো হয়েছে। কিন্তু হাইকোর্টের এই নির্দেশের পর থেকেই খোঁজ নেই রাজীব কুমারের। তারমধ্যেই জানা গেল, বারাসাত আদালতে জামিনের জন্য আবেদন করেছেন তিনি। আগামীকাল হতে পারে সেই মামলার শুনানি।

সিবিআই সূত্রে খবর, শনিবার বিকেলে বারাসাতের সিবিআই বিশেষ আদালতে জামিনের জন্য আবেদন করেন রাজীব কুমার। সেই আবেদনের কপি ইতিমধ্যেই হাতে পেয়েছে সিবিআই। এই আবেদনের বিরোধিতা করবে সিবিআই। তারা আদালতের কাছে আবেদন করবে, যাতে জামিন অযোগ্য ধারায় কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা যায়।

সিবিআই-এর তরফে জানানো হয়েছে, যে যে কারণ দেখিয়ে জামিনের আবেদন করেছেন রাজীব কুমার, সেইসব কারণের বিরুদ্ধে যুক্তি সাজাচ্ছেন সিবিআই আধিকারিকরা। তারপর তা একটা রিপোর্টের আকারে আদালতে পেশ করা হবে। রাজীব কুমারকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার একাধিক কারণ রয়েছে বলেই দাবি করেছেন সিবিআই আধিকারিকরা।

শনিবার সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে হাজিরা দেওয়ার নোটিস দেওয়া হয়েছিল রাজীব কুমারকে। কিন্তু তিনি হাজিরা দেননি। তাঁর ফোনও বন্ধ। এই পরিস্থিতিতে সোমবার ফের বেলা ২টোর সময় সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজীব কুমারকে। সিবিআই সূত্রে খবর, এ দিন রাজীব কুমার হাজিরা না দিলে তিনি আদালতের নির্দেশ অমান্য করেছেন, এই যুক্তিই খাড়া করবে সিবিআই।

এর আগে রবিবার দুপুরে আচমকাই দুই সিবিআই কর্তা নবান্নে হাজির হন চারটি চিঠি নিয়ে। প্রথমেই রাজ্যের মুখ্য সচিবালয় নবান্নের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অফিসার ছুটির দিনে চিঠি নেওয়া যাবে না বলে জানিয়ে দেন। এর পরেও সিবিআই কর্তারা অপেক্ষা করতে থাকেন। তাঁরা জরুরি হিসেবে এই চিঠিগুলি নিতে অনুরোধ করলে তাঁদের নবান্নে ঢুকতে দেওয়া হয়। সিবিআই মোট চারটি চিঠি নিয়ে এসেছিল। এর মধ্যে দু‍’টি চিঠি ছিল রাজ্য পুলিশের ডিজির উদ্দেশে। বাকি দু’টি মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবের জন্য। ডিজির চিঠি এদিন পুলিশ গ্রহণ করলেও বাকি চিঠি দু’টি নেয়নি। এ দিন সকাল ১০টা ৪০ মিনিট নাগাদ নবান্নে এসে চিঠি জমা দিয়ে যায় সিবিআইয়ের বিশেষ দল। মুখ্য সচিব এবং স্বরাষ্ট্র সচিবের নামে দুটি চিঠি এসে জমা দিয়েছে তারা। দুপুর সাড়ে ১২টায় আসার কথা থাকলেও হঠাৎ করে এসেই চিঠি জমা দিয়ে যায় তারা।

Comments are closed.