মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৬

মেয়েরা সত্যিই বিপন্ন, #মি টু প্রসঙ্গে মুখ খুললেন অমিতাভ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘না কা মতলব সিরফ না হি হোতা হ্যায়।’

পিঙ্ক ছবিতে মহিলাদের যৌনহেনস্থার প্রসঙ্গে এমনটাই বলেছিলেন অমিতাভ বচ্চন অভিনীত বর্ষীয়ান আইনজীবীর চরিত্র দীপক সেহগাল।

দেশুজুড়ে চলা ‘মি টু’ আন্দোলনের প্রেক্ষিতে কিন্তু সেই অমিতজিই ছিলেন একদম চুপ।

বৃহস্পতিবার নীরবতা ভেঙে অবশেষে মুখ খুললেন তিনি। নিজের ৭৬ তম জন্মদিনে টুইট করে প্রকাশ করলেন নিজের একটি ইন্টারভিউ। সেখানেই উঠে এল কর্মক্ষেত্রে, বিশেষ করে এনটারটেনমেন্ট ইন্ডাস্ট্রিতে মেয়েদের যৌন হেনস্থার প্রসঙ্গ।

আর সেই উত্তর অমিতাভ দিলেন একদম স্ট্রেট ব্যাটেই। বললেন, “কোনও মহিলার সঙ্গে কোনও ধরনের অশোভন আচরণ হওয়া উচিত নয়। বিশেষ করে কর্মক্ষেত্রে। এই রকম কোনও ঘটনা ঘটলেই সঙ্গে সঙ্গে উপযুক্ত আইনি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।”

অমিতাভের আরও বক্তব্য, “নারী আর শিশুরাই সমাজের সব থেকে বিপন্ন অংশ। অনেক সময়েই নানা অপরাধের শিকার হয় এরাই। এদের জন্য তাই দরকার বিশেষ সামাজিক সুরক্ষা। এই দেশে প্রায় সব পেশাতেই এগিয়ে আসছেন নারীরা। তাঁদের ঠিক ভাবে স্বাগত জানাতে না পারা বা তাঁদের সম্ভ্রম ও সুরক্ষা না দিতে পারাটা আমাদের কলঙ্ক।”

এবং এর জন্য একদম প্রাথমিক স্তর থেকেই ছাত্রদের শৃঙ্খলা, সামাজিক ন্যায় ও নীতিবোধের পাঠ দেওয়ার প্রয়োজন আছে বলেও মনে করেন তিনি।

নারীর সুরক্ষার বিষয়ে এর আগেও বহুবার মুখ খুলেছেন অমিতাভ। পিঙ্ক সিনেমার সময় তিনি এই নিয়ে খোলা চিঠিও লিখেছিলেন তাঁর নাতনিকে। এমন কোনও ঘটনা ঘটলে চুপ না থাকার পরামর্শও দিয়েছিলেন। এমনিতেও দেশের ‘বেটি পড়াও, বেটি বাঁচাও’ কর্মসূচির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর অমিতাভ।

দ্য ওয়াল পুজো ম্যাগাজিন পড়তে ক্লিক করুন

কিন্তু কিছুদিন আগেই নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে তনুশ্রী দত্তর করা যৌন হেনস্থার অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলতে চাননি অমিতাভ। এর জন্য তাঁর সমালোচনাও শুরু হয়েছিল দেশের বিভিন্ন মহলে। অন্য সময় নারী সুরক্ষা নিয়ে এত কথা বলছেন, অথচ খোদ তাঁরই সাম্রাজ্য বলিউডে যখন বর্ষীয়ান এক অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন আরেক অভিনেত্রী, তখন কেন চুপ অমিতাভ? এই প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে।

তারপর দেশ জুড়ে ক্রমশ বাড়ছে ‘মি টু’ আন্দোলনের ঝড়। কদিন আগেই এই আন্দোলনকে সমর্থন করেছিলেন তাঁর পুত্রবধু ঐশ্বর্য রাই। শেষে জন্মদিনের টুইটে এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন অমিতাভ। স্পষ্ট করে দিলেন তাঁর মতামত।

Shares

Comments are closed.