সোমবার, আগস্ট ২০

প্রেমের টানে সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে, তিন বছর কারাবন্দী ভারতীয় যুবক

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ইন্টারনেটে বেশ কয়েকজন পাকিস্তানি যুবক-যুবতীর সঙ্গে বন্ধুত্ব হয়েছিল ভারতের নাগরিক হামিদের। প্রেমেও পড়েছিল এক পাকিস্তানি যুবতীর । গোপনে প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েই হল বিপদ ।

হামিদ পেশায় সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার। চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাওয়ার নাম করে ২০১২ সালে সে পাড়ি দেয় কাবুলে। তারপর থেকে কয়েকবছর তার খোঁজ মেলেনি। শেষপর্যন্ত জানা যায়, পাকিস্তানের সরকার তাকে চর বলে বন্দি করে রেখেছে। জেলের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ডিসেম্বরে। তার মা ফৌজিয়া এবং বাবা নিল আহমেদ আনসারি আশা করছেন, এতদিনে ছেলের সঙ্গে দেখা হবে।

হামিদের ফেসবুক আর জি মেল অ্যাকাউন্ট ঘেঁটে তার বাবা-মা জানতে পেরেছেন, সে পাকিস্তানে গিয়ে প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার উপায় খুঁজে পাচ্ছিল না।  তার তিন বন্ধু আত্তাযুর রহমান, সাজিয়া খান ও সাবা খান তাকে বলে, তুমি যদি কোনওভাবে কাবুলে আসতে পার আমরা তোমাকে পাকিস্তানে ঢোকার রাস্তা বলে দেব।

হামিদ আফগানিস্তানে যাওয়ার পরে পাকিস্তানের খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশের কোহাট থেকে একজন তাকে একটি ভুয়ো পাসপোর্ট জোগাড় করে দেয়। সে সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে ঢুকে পড়ে। কিন্তু ২০১৫ সালে সেনাবাহিনী পাকড়াও করে তাকে। গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে সেনা আদালতে তার তিন বছরে কারাদণ্ড হয়।

আগামী ১৫ ডিসেম্বর সে ছাড়া পাবে।  আত্তারি-ওয়াঘা সীমান্তে তাকে তুলে দেওয়া হবে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের হাতে।  হামিদকে ভারতে ফেরানোর জন্য উদ্যোগ নিয়েছিল পাকিস্তান ইন্ডিয়া পিপলস ফোরাম ফর পিস অ্যান্ড  ডেমোক্রেসি নামে এক সংগঠন। তার সাধারণ সম্পাদক যতীন দেশাই বলেছেন, হামিদের বাবা-মা গত ছবছর ধরে ছেলের জন্য অনেক কষ্ট করেছেন।  সে যাতে নিরাপদে দেশে ফিরে আসে, সেজন্য ভারত সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে।

Shares

Leave A Reply