সাহিত্যে দু’বছরের নোবেলজয়ীর নাম ঘোষণা, সম্মানিত পোল্যান্ড ও অস্ট্রিয়ার লেখক

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত বছর সাহিত্যে নোবেল পাননি কেউ। নোবেল কমিটির সদস্যদের নিয়ে কেলেঙ্কারির জেরে স্থগিত হয়ে গিয়েছিল সেটি। এ বছর তাই সাহিত্যে দু’বছরের নোবেল পুরস্কার একসঙ্গে ঘোষণা করেছে সুইডিশ অ্যাকাডেমি। ২০১৮ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন পোল্যান্ডের লেখক ওলগা তোকারজুক এবং ২০১৯ সালের পুরস্কার উঠবে অস্ট্রিয়ার লেখক পিটার হান্দকের হাতে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এই পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

২০১৮ সালে নোবেল কমিটির এক সদস্যের স্বামী ও জনপ্রিয় আলোকচিত্রী জ্যঁ ক্লদ আর্নোর বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ আনা হয়। পরে ওই ঘটনায় তাঁকে দুই বছরের কারাদণ্ড প্রদান করে আদালত। যৌন কেলেঙ্কারির পাশাপাশি বিজয়ীর নাম ফাঁস করার অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। বিতর্কের মুখে স্থগিত করা হয় ২০১৮ সালের সাহিত্যে নোবেল প্রদান।
২০১৮ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার ঘোষণা বাতিলের আগে দ্বিতীয় ও প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময়ে এই বিভাগে পুরস্কার দেওয়া হয়নি। এর পরে গত বছরের এই কেলেঙ্কারির কারণে এই ঘটনা। এই বার অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করেছে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি। পাল্টে দিয়েছে নোবেল কমিটির কাঠামোও। বৃহস্পতিবার একসঙ্গে ঘোষণা করা হয় ২০১৮ ও ২০১৯ সালের দু’বছরের বিজয়ীর নাম।
২০১৮ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া পোলিশ লেখক ওলগা তোকারজুকের জন্ম ১৯৬২ সালে।  বাণিজ্যিক ভাবে নিজের প্রজন্মের সবচেয়ে সফল লেখক বলে মনে করা হয় তাকে। ২০১৮ সালে ‘ফ্লাইটস’ উপন্যাসের জন্য ম্যান বুকার ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার লাভ করেন তিনি। এর আগে ১৪ জন মহিলা সাহিত্যে নোবেল পেয়েছেন। তার পরেই জুড়ে গেল ওলগার নাম।
২০১৯ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া অস্ট্রিয়ার লেখক পিটার হান্দকের জন্ম ১৯৪২ সালে। উপন্যাস, নাটক লেখার পাশাপাশি অনুবাদক হিসেবেও খ্যাতি রয়েছে এই নোবেলজয়ীর।
১৮৯৫ সালের নভেম্বর মাসে স্যার আলফ্রেড নোবেল নিজের মোট উপার্জনের ৯৪% (৩ কোটি সুইডিশ ক্রোনার) দিয়ে তার উইলের মাধ্যমে এই নোবেল পুরস্কার প্রবর্তন করেন। এই বিপুল অর্থ দিয়েই শুরু হয় বিভিন্ন বিষয়ে নোবেল পুরস্কার প্রদান। ১৯৬৮ সালে তালিকায় যুক্ত হয় অর্থনীতি।

তবে দুর্ভাগ্যের বিষয় হল, এই পুরস্কার ঘোষণার আগেই মৃত্যুবরণ করেছিলেন আলফ্রেড নোবেল। আইনসভার অনুমোদন শেষে তাঁর উইল অনুযায়ী নোবেল ফাউন্ডেশন গঠিত হয়। তারাই সায়িত্ব নেয় প্রতি বছর নোবেল পুরস্কারের সার্বিক ব্যবস্থাপনার। বিজয়ী নির্বাচনের দায়িত্ব থাকে সুইডিশ অ্যাকাডেমি আর নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটির উপরে।

আরও পড়ুন…

৯৭ বছর বয়সে নোবেল পুরস্কার! বৃদ্ধতম বিজ্ঞানী হিসেবে রসায়নে সম্মানিত মার্কিন গবেষক

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More