মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

দু’মাস পরে দলের নেতাদের সঙ্গে দেখা করতে অনুমতি ফারুক আবদুল্লা ও ওমরকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ৪ অগস্ট থেকে গৃহবন্দি হয়ে আছেন জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা ও তাঁর ছেলে ওমর আবদুল্লা। দীর্ঘ দু’মাস পরে, রবিবার তাঁদের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পেলেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের অন্যান্য নেতা। এদিন ফারুক ও ওমরের সঙ্গে বৈঠকের পর ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা হাসনাইন মাসুদি বলেন, দুই নেতা শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন কিনা আমরা খোঁজ নিতে এসেছিলাম। তাঁদের সঙ্গে রাজনীতির কোনও কথা হয়নি।

ফারুক ও ওমর অবশ্য আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, রাজ্যে ব্লক ডেভলপমেন্ট কাউন্সিলের নির্বাচনে তাঁরা অংশ নেবেন না। কারণ দলের প্রায় পুরো নেতৃত্বই এখন জেলে রয়েছেন। সরকার ব্লক ডেভলপমেন্ট কাউন্সিলের নির্বাচন ঘোষণা করার পরেই জম্মু-কাশ্মীরে কড়াকড়ি শিথিল করা শুরু হয়। জম্মুতে আটক রাজনৈতিক নেতারা মুক্তি পান। রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের উপদেষ্টা ফারুক খান বলেন, এবার কাশ্মীরের নেতাদেরও একে একে মুক্তি দেওয়া হবে।

শুক্রবার বিজেপির প্রবীণ নেতা রাম মাধব বলেন, খুব শীঘ্র নেতারা মুক্ত হবেন। আমরা চাই সেখানে স্বাভাবিক রাজনৈতিক কাজকর্ম শুরু হোক। এর পরে তিনি জোর দিয়ে বলেন, সেখানে শুধুমাত্র স্বাভাবিক রাজনৈতিক কার্যকলাপই চলতে দেওয়া হবে।

রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংবিধানের ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার কথা ঘোষণা করার আগে জম্মু-কাশ্মীরে ৪০০ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। রাজ্যে যাতে বিক্ষোভ না ছড়িয়ে পড়ে সেজন্যই তাঁদের আটক করা হয়েছিল। ৮১ বছর বয়সী ফারুক গৃহবন্দি হয়েছিলেন। অন্যদিকে ওমরকে রাখা হয়েছিল হরি নিবাস নামে এক অতিথিশালায়। পিডিপি নেত্রী তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও জম্মু কাশ্মীর পিপলস কনফারেন্সের নেতা সাজ্জাদ লোনকেও আটক করা হয়েছিল।

Comments are closed.