বুধবার, অক্টোবর ১৬

কেন আত্মঘাতী শিক্ষিকা কৃষ্ণকলি, ধন্দে সকলেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো : প্রতিদিন সকালবেলা তাঁকে গাড়ি চালিয়ে চলে যেতে দেখতেন পড়শিরা। বিকেল গড়ালে বাড়ি ফিরতে। সবাই শুনেছেন কলকাতার কলেজে পড়ান তিনি। পারিবারিক কোনও অস্বাভাবিকতাও লক্ষ করেননি কখনও। মাত্র তিন মাসের পড়শি সম্পর্কে তাই বাড়তি কোনও কৌতুহলও ছিল না গোটা পাড়ার।

মঙ্গলবার কৃষ্ণকলি চট্টোপাধ্যায় ভট্টাচার্যের (৩৯) দেহ উদ্ধারের খবর শোনার পরে প্রাথমিকভাবে হতবাক হয়ে যান মধ্যমগ্রামের পূর্ব বঙ্কিম পল্লির বাসিন্দারা। জানতে পারেন, বাড়িতেই মিলেছে কলেজ শিক্ষিকার ঝুলন্ত দেহ। পুলিশ জানিয়েছে শিক্ষিকার ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেছে তারা। তাতে নিজের মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী করেননি তিনি।

কলকাতার ভিক্টোরিয়া কলেজে দর্শনের শিক্ষিকা ছিলেন কৃষ্ণকলি। বছর পাঁচেক আগে কলেজের চাকরিতে যোগ দেন। গত ডিসেম্বর মাসে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। পুলিশ জানিয়েছে, আগে বেলঘরিয়ায় থাকতেন। মাস তিনেক আগে মধ্যমগ্রামের পূর্ব বঙ্কিম পল্লিতে বাড়ি ভাড়া নেন। কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবারও কলেজে গিয়েছিলেন তিনি। পরীক্ষার গার্ড দিয়ে ফিরে আসেন। এ দিন কলেজের কেউ তাঁর মধ্যে কোনও অস্বাভাবিকতা লক্ষ করেননি বলে জানিয়েছেন তাঁর সহকর্মীরা। কৃষ্ণকলির এমন পরিণতিতে তাই অবাক তাঁরা।

কেন আত্মঘাতী হলেন দর্শনের শিক্ষিকা তা এখনও রহস্যের আড়ালে। স্বভাবে খুবই হাসিখুশি ছিলেন বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণকলির সহকর্মীরা। তাঁর পারিবারিক কোনও সমস্যা ছিল বলেও জানা নেই তাঁদের। তবুও কোন বিষাদে নিজের জীবনের ইতি টানলেন তিনি তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশও।

Comments are closed.