শনিবার, ডিসেম্বর ১৪
TheWall
TheWall

জাতীয় সড়কের ধারে সার্ভিস রোডেও লরির জট, গ্রামীণ হাওড়ায় ভোগান্তি

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হাওড়া: জাতীয় সড়কের পাশ দিয়ে সার্ভিস রোড। আশেপাশের গ্রামগুলোর মানুষদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য। কিন্তু সেই সার্ভিস রোড জুড়ে সার দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে লরি, গ্যাস ট্যাঙ্কার। যত্রতত্র পড়ে ইমারতি দ্রব্য। ফলে অটো, ট্রেকার, টোটোর যাতায়াত সেই জাতীয় সড়কের ওপর দিয়েই। প্রতিদিন সমস্যায় পড়ছেন এলাকার মানুষ। পথচলতি নিত্যযাত্রীরা। কিন্তু প্রশাসন নির্বিকার বলেই অভিযোগ তাঁদের।

ছবিটা গ্রামীণ হাওড়ার। ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে রানিহাটি থেকে কোলাঘাট ব্রিজের আগে পর্যন্ত দূরত্ব প্রায় ৪২ কিলোমিটার। এই এলাকার কয়েকশো গ্রামের কয়েক হাজার মানুষের যাতায়াতের জন্য অধিকাংশ জায়গাতেই রয়েছে সার্ভিস রোড। কিন্তু গ্রামবাসীদের অভিযোগ, জাতীয় সড়ক ছেড়ে এই সার্ভিস রোড জুড়েই দাঁড়িয়ে থাকে বড় লরি ও ট্যাঙ্কার। তাই রোজ সমস্যায় পড়তে হয় তাঁদের। তাঁরা বলেন, সার্ভিস রোড আটকে যাওয়ায় বাস ও অধিকাংশ অটো জাতীয় সড়ক ধরেই চলাচল করে। ফলে বিপদের ঝুঁকি নিয়েই জাতীয় সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে থাকতে হয় তাঁদের। যাত্রীরা হাত দেখালেই দাঁড়িয়ে পড়ে বাস ,ট্রেকার, অটো। বেশ কয়েকবার হঠাৎ দাঁড়িয়ে পড়া গাড়িতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা দিয়েছে দ্রুতগতিতে পিছন থেকে আসা ট্রাক। গত তিন মাসে এই রকম প্রায় ছ’টি দুর্ঘটনা ঘটেছে।

বীরশিবপুর শ্রীরামপুর রোডের এক বাস চালকের অভিযোগ, ‘‘সার্ভিস রোডে সব সময় লরি দাঁড়িয়ে জ্যাম করে রাখে। তাই বাধ্য হয়ে জাতীয় সড়ক ধরে বাস চালাতে হয় আমাদের।’’

অবশ্য সার্ভিস রোডে গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকার কথা মানতে চাননি হাওড়া গ্রামীণ পুলিশের কর্তারা। তাঁদের দাবি, সার্ভিস রোডে  কোনও গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকে না। কারণ যে সব গাড়ি দাঁড়ায় তাদের জরিমানা করা হয়। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে কোনও গাড়ি যাতে দাঁড়িয়ে না থাকে তার জন্য আরও বেশি করে নজরদারি চালানো হবে।

জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, কিছু জায়গায় সার্ভিস রোড তৈরি এখনও বাকি আছে। সেগুলোর কাজ শীঘ্রই  শুরু হবে। তবে সার্ভিস রোডে গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকার বিষয়টি পুলিশ দেখবে।

Comments are closed.