মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

পেনশনের টাকার ভাগ না পেয়ে নোড়া দিয়ে বাবার মাথা ফাটালো ছেলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব মেদিনীপুর : পেনশনভোগী বাবা। সেই পেনশনের অর্ধেক টাকা দাবি করেছিল ছেলে। টাকা দিতে অস্বীকার করায় বাবার মাথায় নোড়া দিয়ে আঘাত করে প্রাণে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে।

ভগবানপুর থানার পশ্চিম মাশুড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা ভবেশচন্দ্র দোলুই। সেচ দফতরে চাকরি করতেন। ১৪ বছর আগে অবসর নিয়েছেন। এখন মাসে দশ হাজার টাকা করে পেনশন পান তিনি। ৭৪ বছরের বৃদ্ধ তাতেই একরকম ভাবে চালিয়ে নেন নিজের এবং স্ত্রীর খাওয়া ও ওষুধের খরচ। ভবেশবাবুর দুই ছেলে। অভিযোগ, গত কয়েক মাস ধরে ভবেশবাবুর বড় ছেলে দিলীপ পেনশনের অর্ধেক টাকা তার হাতে দিতে হবে, এই দাবিতে চড়াও হচ্ছিল ভবেশবাবু এবং তাঁর স্ত্রীর উপর। এরমধ্যে বেশ কয়েক দিন মারধর করে তাঁদের।

অভিযোগ, মঙ্গলবারও একই দাবিতে মায়ের উপর চড়াও হয় সে। তখন স্ত্রীকে বাঁচাতে যান ওই বৃদ্ধ। মাকে ছেড়ে বাবার দিকে তেড়ে যায় গুণধর ছেলে। একটি নোড়া দিয়ে সজোরে আঘাত করে বাবার মাথায়। রক্তাক্ত অবস্থাতেই ভগবানপুর থানায় যান ভবেশবাবু। থানার আধিকারিকরা তাঁকে ভগবানপুর হাসপাতালে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁর অভিযোগ লিখে নেয় ভগবানপুর হাসপাতালের পুলিশ। বাড়ি পাঠানো হয় তাঁকে।

টাকা পয়সার দাবিতে তাঁকে প্রাণে মারার চেষ্টা হয় বলে অভিযোগ করেন ওই বৃদ্ধ। ছেলের এমন অত্যাচারে চোখে জল বৃদ্ধ ভবেশবাবুর। বলেন, “বাঁচতে ইচ্ছে করে না আর। এমন ছেলে থাকলে কেই বা আর ভাল থাকে?”

ঘটনার পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছে ভবেশবাবুর ছেলে। পুলিশ জানিয়েছে, তার খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

Comments are closed.