সোমবার, অক্টোবর ১৪

ভোরবেলা মাঠে যেতেই বধূকে শুঁড়ে জড়িয়ে আছড়ে মারল দাঁতাল

দ্য ওয়াল ব্যুরো, ঝাড়গ্রাম : সকালে ঘুম ভাঙতেই হাতির তাণ্ডব বেলিয়াবেড়া গ্রামের আগরবনী গ্রামে। দাঁতালের হামলায় মৃত্যু হল এক বধূর।

এলাকার বাসিন্দারা জানান, সকালে শৌচকর্ম সারতে মাঠে গিয়েছিলেন কল্যাণী ঘোষ (৩২)। সেখানেই হঠাৎ দাঁতালের সামনে পড়ে যান তিনি। দাঁতালটি শুঁড়ে জড়িয়ে আছাড় মারে তাঁকে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই বধূর।

এ দিকে দীর্ঘক্ষণ বাড়ি না ফেরায় বাড়ির লোক উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। মাঠের দিকে খোঁজ করতে গিয়ে ওই বধূর দেহ দেখতে পান গ্রামের মানুষ। তাঁরা জানান, আগরবনী গ্রামের পরে পাশের গ্রাম আঁধারিয়ায় হানা দেয় হাতিটি। সেখানে রাস্তার ধারে যা কিছু দেখতে পায় সবকিছু ভেঙে দেয়। মোট পাঁচটি সাইকেল, একটি ট্রাক্টর ও একটি বাড়ি হাতির হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান তাঁরা। ক্ষয়ক্ষতি করে লাগোয়া জঙ্গলে ঢুকে পড়ে হাতিটি। খবর পেয়ে পৌঁছোয় পুলিশ ও বনদফতরের কর্মীরা।

ভোর ভোর হাতির হামলায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয় গোটা এলাকায়। গ্রামবাসীরা জানান, দলছুট তিন থেকে পাঁচটি হাতি লাগাতার হামলা চালাচ্ছে ওই এলাকায়। ঝাড়গ্রাম জেলা জুড়ে হাতির হানায় মৃত্যুর ঘটনা নতুন কিছু নয়। খাবারের সন্ধানে বারবারই জঙ্গল ছেড়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে হাতি। জাতীয় সড়ক ও রাজ্য সড়কেও গাড়ি থামিয়ে চলে খাবারের খোঁজ।

বন দফতরের আধিকারিকরা জানান, এ দিন সকালে দলছুট একটি দাঁতাল ঢুকে পড়েছিল আগরবনী গ্রামে। পরে আঁধারিয়া গ্রামেও হানা দেয় সেটি। ঝাড়গ্রামের ডিএফও বাসবরাজ হল্লাইচি বলেন, “একটি দলছুট হাতি এ দিন ঢুকে পড়েছিল ওই গ্রামে। হাতির হানায় যাঁর মৃত্যু হয়েছে সরকারি নিয়ম মেনে তাঁর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।”

Comments are closed.