বাংলায় ১৪৯ জন আক্রান্ত এক দিনে, ৩৪ জনই মালদহে! সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী গতিতে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য ভবন

১৩

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রশাসনের আশঙ্কা সত্যি করে, হু হু করে বাড়তে শুরু করেছে বাংলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গতকাল, রবিবারই সবাইকে চমকে দিয়ে এই সংখ্যা পৌঁছেছিল ২০৮-এ। আজ সোমবার সন্ধ্যেয় স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪৯ জন। মারা গেছেন ৬ জন। এ নিয়ে রাজ্যে মোট কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ৩৮১৬-এ। কোভিডে মৃত্যু হয়েছে মোট ২০৬ জনের। কো মর্বিডিটি ধরে শরীরে করোনা থাকা অবস্থায় মারা যাওয়া মোট মানুষের সংখ্যা ২৭৮।

এ দিন ৯২২৫ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এপর্যন্ত এই সংখ্যাটা সর্বাধিক। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ৯২১৬। অর্থাৎ প্রতিদিনই অনেক বেশি সংখ্যায় টেস্ট হচ্ছে রাজ্যে। ফলে কোভিড রোগীও যে আরও বেশি ধরা পড়বেন, সেটা হওয়ারই কথা। সেই সঙ্গে যোগ হয়েছে, গত কয়েক দিনে বিভিন্ন রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরার বিপদ। অনেকেই নানা উপসর্গ নিয়ে বাংলায় ফিরেছেন। তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে রেখে টেস্ট করা হচ্ছে। সেখান থেকে একটা বড় সংখ্যার মানুষ কোভিডে আক্রান্ত বলে ধরা পড়ছেন বলে জানা গেছে সরকারি সূত্রে।

এদিনের বুলেটিন বলছে, মালদহে সবচেয়ে বেশি সংখ্যায় ধরা পড়েছেন নতুন করোনা আক্রান্ত। সংখ্যাটা ৩৪। স্পষ্টতই এর মধ্যে একটা বড় সংখ্যা পরিযায়ী শ্রমিকদের। মালদহে মোট আক্রান্ত ১১৬ জন।  উত্তর দিনাজপুরেও ধরা পড়েছেন ১৩ জন নতুন  আক্রান্ত। অথচ কয়েক দিন আগেও রাজ্যের গ্রিন জ়োনের তালিকায় ছিল এই জেলা। এখন সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬।

তবে পরিযায়ী শ্রমিকরা বাংলায় ফিরলেই যে করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা বাড়বে, তা অনেকেই বলছিলেন। পরিযায়ী শ্রমিকরা ভিন্ রাজ্য থেকে ফিরলে তাঁদের গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছিল না বলেও শোনা গেছিল রাজ্যের বহু প্রান্ত থেকে। কিন্তু এ কথা ঠিক, পরিযায়ী শ্রমিকরা ভিন্ রাজ্যে অত্যন্ত কষ্ট করেছিলেন। তাঁরা বাড়ি ফিরতে চাইছেন, তাঁদের পরিবারের লোকজন তাঁদের জন্য আকুল হচ্ছেন। এই বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই দেখতে হবে।

কিন্তু নিশ্চিত করতে হবে, পরিযায়ী শ্রমিকরা যেন বাড়ি ফিরে অবশ্যই কোয়ারেন্টাইনে থাকেন। কারও শরীরে কোনও রকম উপসর্গ দেখা দিলে কোনও ঝুঁকি না নিয়ে পরীক্ষা করান। তার পরে নিয়ম মেনে যেন আইসোলেশনে থাকেন তাঁরা। কারণ, সমাজের প্রতি তাঁদেরও দায়িত্ব রয়েছে। এ ব্যাপারে সচেতন হয়ে পদক্ষেপ তা তাঁর পরিবার ও পরিজনদের জন্যও মঙ্গলের হবে।

পাশাপাশি কলকাতাতেও আক্রান্তের সংখ্যা বেশ বাড়ছে দ্রুতই। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জন আক্রান্ত হওয়ার পরে শহরে মোট কোভিড রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬৯৫। কলকাতার পড়শি জেলা হাওড়াতেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। সোমবার যদিও নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া অনেকটাই কম, ১৩ জন। ফলে সে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮১২।

তবে এখনও পর্যন্ত মোট ২১২৪ জন করোনা থেকে সুস্থও হয়ে উঠেছেন এই রাজ্যে। গত ২৪ ঘণ্টাতেই সেরে উঠেছেন ৬৮ জন। ডিসচার্জ রেট এখন ৩৭.০৫ শতাংশ।

সোমবারের বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এ পর্যন্ত মোট এক লাখ ৪৮ হাজার ৪৯ জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে রাজ্যে। প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের মধ্যে টেস্টের সংখ্যাটা ১৬৪৫। মোট টেস্টের ২.৫৮ শতাংশ মানুষের করোনা পজ়িটিভ ধরা পড়েছে। মোট ৩৩টি ল্যাবে এখন চলছে পরীক্ষা। কোভিড হাসপাতাল রাজ্যে রয়েছে ৬৯টি। ৫৮২টি সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ১৭ হাজার ১৭১ জনকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More