সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

শেরপার দল রওনা দিল মাকালুর দিকে, খোঁজ কি মিলেছে দীপঙ্করের! উৎকণ্ঠার প্রহর গুনছে বাঙালি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাতের বেলা ১৪ জন শেরপার একটি দল রওনা দিয়েছে মাকালুর পথে, নিখোঁজ দুই অভিযাত্রীর খোঁজে। তাঁদের মধ্যে এক জন বাংলার পর্বতারোহী দীপঙ্কর ঘোষ। পর্বত অভিযান আয়োজস সংস্থা সেভেন সামিটসের তরফে মিংমা শেরপা জানিয়েছেন, ছাঙ দাওয়া শেরপার নেতৃত্বে ওই দলটি ইতিমধ্যেই ক্যাম্প ফোরের দিকে আরোহণ শুরু করে দিয়েছে।

আজ সকালেই হেলিকপ্টারে করে প্রাথমিক উদ্ধারকারী দল উড়েছিল মাকালুর দিকে, নিখোঁজ অভিযাত্রী দীপঙ্কর ঘোষের খোঁজে। ওই কপ্টারেই ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের যুবকল্যাণ দফতরের পর্বতারোহণ শাখার (ওয়েস্ট বেঙ্গল মাউন্টেনিয়ারিং অ্যান্ড অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস ফাউন্ডেশন) উপদেষ্টা দেবদাস নন্দী। কলকাতা থেকে উদ্ধারকাজ তদারকি করতে কাঠমাণ্ডু পৌঁছেছেন তিনি। দেবদাসবাবু  দ্য ওয়ালের রূপাঞ্জন গোস্বামীকে জানিয়েছিলেন, আজ মঙ্গলবার, উদ্ধারকারী দলের হেলিকপ্টার যাচ্ছে দীপঙ্কর ঘোষের খোঁজে। সেই হেলিকপ্টারে তিনিও থাকছেন। দীপঙ্কর কোথায় রয়েছেন তা চিহ্নিত করা গেলে, শেরপার দল যাবে রেসকিউ করতে।

আরও পড়ুন: শেরপা নেই, আবহাওয়া খারাপ! উদ্ধারকাজ নিয়ে টানাপড়েন, তুষাররাজ্যেই কি হারিয়ে গেলেন দীপঙ্কর!

তার পরেই রাতে শেরপাদের আরোহণের খবর পেয়ে ফের এক বার নতুন করে বুক বেঁধে বসেছে বাংলার পর্বতপ্রেমী মহল। তা হলে কি কোনও খোঁজ মিলল দীপঙ্করের! তাঁকে কি দেখতে পাওয়া গিয়েছে কপ্টার থেকে! তাই জন্যই কি শেরপার দল রওনা দিল রাতারাতি? দেখা গেলেও কী অবস্থায় আছেন দীপঙ্কর? নানা প্রশ্ন আর অফুরান উদ্বেগ এই মুহূর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে বাংলার পর্বতারোহণ মহলে।

অন্য দিকে, এভারেস্ট অভিযানে আজই ক্যাম্প ফোর থেকে বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গের দিকে চূড়ান্ত আরোহণ শুরু করেছে বাংলার অভিযাত্রী পিয়ালি বসাক। এভারেস্ট সামিট করার পরে লোৎসে শৃঙ্গও ছুঁতে যাওয়ার কথা চন্দননগরের এই তরুণীর। কী খবর আসে সকালে, সামিট সফল হয় কি না, এই শুভেচ্ছা ও উৎকণ্ঠা সঙ্গে নিয়ে অপেক্ষায় আছেন অনেকেই।

আরও পড়ুন: কুন্তল-বিপ্লবকে বাঁচানোর শেষ চেষ্টা করেছিলেন বিখ্যাত পর্বতারোহী নির্মল পুর্জা! তার পর…

তারই সঙ্গে অনেকের চোখ রয়েছে দীপঙ্কর ঘোষকে মাকালু থেকে উদ্ধারের অভিযানের দিকে। মিংমা শেরপা জানিয়েছেন, বাংলার দীপঙ্কর ঘোষ যে দিন নিখোঁজ হন, সে দিনই ক্যাম্প ফোরে নামার পথে মারা যান সেনাবাহিনীর সদস্য হরিয়ানার নারায়ণ সিং। বৃহস্পতিবার থেকে তাঁর দেহ ৮,২০০ মিটার উচ্চতায় রয়েছে। দীপঙ্করের খোঁজের পাশাপাশি নারায়ণের দেহও নামিয়ে আনা হবে সেখান থেকে।

আরও পড়ুন: হিমালয়ে যেন মৃত্যুমিছিল! মাকালু ও এভারেস্টে প্রাণ হারালেন এক সেনা-সহ দুই ভারতীয় আরোহী

পৃথিবীর পঞ্চম উচ্চতম শৃঙ্গের ক্যাম্প ফোরের কাছে নিখোঁজ হওয়া দীপঙ্করকে খুঁজতে কাঠমাণ্ডুর ভারতীয় দূতাবাস সব রকম সাহায্য করছে বলে জানিয়েছেন মিংমা শেরপা। এর আগে বিদেশ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজও টুইট করে জানিয়েছিলেন তাঁরা অভিযাত্রীদের উদ্ধারে যথাসম্ভব চেষ্টা করবেন। তাঁরাও তাঁদের সর্বোচ্চ চেষ্টায় খুঁজবেন দীপঙ্করকে। ওই শেরপা দলেরই আর এক শেরপা তাশি লাকপার নেতৃত্বে নামানো হবে নারায়ণের দেহ। ক্যাম্প টু থেকে হেলিকপ্টারে রেসকিউ করা হবে সেই দেহ।

আরও পড়ুন: বিপ্লব-কুন্তলের নিথর দেহ ফিরল কাঠমাণ্ডু, নিখোঁজ দীপঙ্করের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ

এই দলটিই কয়েক দিন আগে এভারেস্ট অভিযানে ক্যাম্প ফোরে মৃত ভারতীয় পর্বতারোহী রবি ঠাকুরের দেহ উদ্ধার করেছে। সূত্রের খবর, এই ধরনের উদ্ধার অভিযানে আগেও বিশেষ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে এই দলটি। এবারও তাঁরা দীপঙ্করের খোঁজ পাবেন বলেই বিশ্বাস অনেকের।

এই আরোহণ-মরসুমে এই নিয়ে ১১টি দুঃখজনক মৃত্যু দেখল নেপাল হিমালয়। এখনও পর্যন্ত কাঞ্চনজঙ্ঘায় মারা গেছেন তিন জন। তাঁদের মধ্যে দু’জন বাংলার কুন্তল কাঁড়ার ও বিপ্লব বৈদ্য। তাঁদের দেহ কাঠমাণ্ডু নামিয়ে আনা হয়েছে। এভারেস্টে মারা গ্ছেন দু’জন, মাকালুতে তিন জন, লোৎসে, অন্নপূর্ণা ও চো ইউ-তে এক জন করে।

আরও পড়ুন: আমরা চার জনেই মরে যেতাম! রুদ্রপ্রসাদের রুদ্ধশ্বাস অভিজ্ঞতায় ফুটে উঠল পাহাড়চুড়োর আতঙ্ক

কিন্তু এ সবের মাঝেই কোনও মিরাকেল কি ঘটবে দীপঙ্করের সঙ্গে? কোনও ভাবে কি তাঁকে জীবিত ফিরে পাওয়ার আশা আছে? যুক্তি বলছে না, নেই। কিন্তু পাহাড় বারবারই নানা ভাবে বিস্মিত করেছে মানুষকে। এর আগেও ২০১৬ সালে সিয়াচেনে তুষারধসে চাপা পড়া ভারতীয় সেনা ল্যান্সনায়েক হনুমানথাপ্পার দেহ জীবিত উদ্ধার হয়েছিল ছ’দিন পরে। ওই বছরেই এভারেস্ট অভিযানে আট হাজার মিটারের ওপরে রাত কাটিয়ে বিস্ময়কর ভাবে বেঁচে ফিরে এসেছিলেন বারাসতের পর্বতারোহী সুনীতা হাজরা। দীপঙ্কর কি তেমনই কোনও ঘটনার মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ দেবেন? আশায় বাঁচছে আরোহণ মহল।

আরও পড়ুন…

কেটে গিয়েছে পাঁচ রাত, মাকালুতে নিখোঁজ দীপঙ্কর! মৃত বলেনি সরকার, মিরাকেল কি সম্ভব

Comments are closed.