মঙ্গলবার, মার্চ ২৬

জিতলেও মার্জিন কমবে, বেফাঁস মন্তব্য তৃণমূল বিধায়কের

দ্য ওয়াল ব্যুরো, জলপাইগুড়ি :  ভোট ঘোষণার পরেই প্রার্থী ঘোষণাও হয়ে গেছে। চলছে প্রচারে ঝড় তোলার প্রস্তুতি। তারই মধ্যে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্ক তৈরি করলেন ময়নাগুড়ির তৃণমূল বিধায়ক অনন্তদেব অধিকারী। জলপাইগুড়ি আসনে তৃণমূল প্রার্থী জিতলেও মার্জিন কমার ইঙ্গিত দিয়ে বেকায়দায় এই প্রবীণ নেতা।

আজই জলপাইগুড়ির তৃণমূল প্রার্থী বিজয়চন্দ্র বর্মনের সঙ্গে উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেস চেপে কলকাতা থেকে জলপাইগুড়ি ফেরেন তিনি। জলপাইগুড়ি রোড স্টেশনে দুজনে একসঙ্গেই নামেন ট্রেন থেকে। দু এক জন সাংবাদিক ছিলেন স্টেশনে। জলপাইগুড়িতে বিজয়বাবুর জয়ের সম্ভাবনা কতটা সেই প্রশ্নের উত্তরে অনন্তদেববাবু বলেন, “আমাদের প্রার্থী জিতবে এই ব্যাপারে আমি নিশ্চিত। কিন্তু ব্যবধান কত হবে তা বলা মুশকিল। এ বারের পরিস্থিতি অন্য রকম।”

আর বিধায়কের এই বক্তব্যের পর স্টেশন চত্বরে থাকা তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে শুরু হয় জল্পনা। যদিও এ ব্যাপারে ক্যামেরার সামনে কেউ কিছু মন্তব্য করতে চাননি। তবে তৃণমূলের জেলা সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তী টেলিফোনে বলেন, “কেন উনি এই মন্তব্য করলেন তা আমার জানা নেই। আমি অবশ্যই ওনার সাথে কথা বলবো।”

বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলা সম্পাদক বাপী গোস্বামীর বক্তব্য, “দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন অনন্তবাবুর। তাই পরিস্থিতির আগাম আঁচ পেয়ে গেছেন। হাঁড়ির একটা ভাত টিপলেই বোঝা যায় ভাত সেদ্ধ হয়েছে কি না। তাই তৃণমূল বিধায়ক তাঁর মনের কথা বলে ফেলেছেন।”

২০১৪ সালে রাজ্যসভার ভোটের সময় মুকুল রায়ের হাত ধরে আরএসপি থেকে তৃণমূলে যোগ দেন অনন্তবাবু। এরপর ২০১৪ সালের উপনির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে ময়নাগুড়ি বিধানসভা থেকে ৩৩ হাজারেরও বেশি ভোটে জেতেন তিনি। ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে একই আসনে তৃণমূলের টিকিটে ৪০ হাজারেরও বেশি ভোটে জেতেন অনন্তদেববাবু।

সেই অনন্তবাবুর এ হেন মন্তব্যের পর বাপীবাবু দাবি করেন, প্রতিদিন তৃণমূলের প্রচুর নেতা ও বিধায়ক বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। অনন্তবাবুও একই পথের পথিক।

Shares

Comments are closed.