বুধবার, জুন ১৯

কাশ্মীরে জওয়ানের অস্বাভাবিক মৃত্যু, সেনাবাহিনীর দাবি আত্মহত্যা, মানতে নারাজ পরিবার

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পশ্চিম বর্ধমান: সেনাবাহিনীর জওয়ান অভিষেক রায়কে চোখের জলে শেষ বিদায় জানালেন শীতলপুরের বাসিন্দারা। সোমবার সকালে অভিষেকের (২৮) দেহ পৌঁছোয় কুলটির শীতলপুরের বাড়িতে। ঘরের ছেলেকে শেষবার দেখতে বাড়ির উঠোনে ভেঙে পরে এলাকাবাসীর ভিড়। সেনাবাহিনীর দাবি, আত্মহত্যা করেছে অভিষেক। তবে তা মানতে নারাজ তাঁর পরিবার।

কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর সিগন্যাল ম্যান পদে কর্মরত ছিলেন অভিষেক। শনিবার সেখান থেকে তাঁর বাবা অশোক রায়কে ফোনে জানানো হয়, ওই দিন সকালে শ্রীনগরের সুফিয়াতে অভিষেক নিজের সার্ভিস রিভলবারের গুলিতে আত্মঘাতী হয়েছেন। খবর আসতেই শোকের ছায়া নামে আসানসোলের কুলটির শীতলপুরের বাড়িতে। দু’দিন পরে আজ সকালে তাঁর দেহ নিয়ে আসা হয় বাড়িতে।

অভিষেকের বাবা অশোক রায় বলেন, “আমি বিশ্বাস করছি না অভিষেক আত্মহত্যা করেছে। আগের রাত পর্যন্ত যে হাসিমুখে কথা বলতে পারে, সে কী করে সকালে আত্মহত্যা করবে। কোনও অশান্তি ছিল না। সামনেই বিয়ের দিন ঠিক হয়েছিল ওঁর।”

জানা গিয়েছে অভিষেকের দিদির বিয়ে হয়ে গিয়েছে। সামনের মে মাসে অভিষেকের বিয়ের দিন ঠিক হয়েছিল। তাই প্রস্তুতিও শুরু হয়েছিল। তারই মধ্যে এই খবরে শোকে বাক্যহারা অভিষেকের বাবা মা। এ দিন দেহ নিয়ে সেনাবাহিনীর কাশ্মীরের কোনও আধিকারিক না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিষেকের পরিবার। পরে পানাগর থেকে সেনা আধিকারিকরা পৌঁছে তাঁদের শান্ত করেন।

Comments are closed.