বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১

বিধায়কের বাড়ি থেকে উদ্ধার পরিচারিকার কন্যার ঝুলন্ত দেহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব মেদিনীপুর : উত্তর কাঁথির বিধায়ক বনশ্রী মাইতির বাড়ি থেকে উদ্ধার হল তাঁর পরিচারিকার কিশোরী কন্যার ঝুলন্ত দেহ। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়। ওই ছাত্রী এ বারই মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ছাত্রীর নাম দেবারতি দাস। উত্তর কাঁথির বিধায়ক বনশ্রীদেবীর বাড়িতে মা গীতা দাসের সঙ্গে থাকতো দেবারতি। আজ সকালবেলা গীতাদেবী বাজারে গেছিলেন। বিধায়কও তৈরি হচ্ছিলেন কলকাতা যাওয়ার জন্য। অনেকক্ষণ পর্যন্ত তাঁর ঘরের দরজা বন্ধ দেখে ডাকাডাকি শুরু করেন সবাই। পরে নীচতলার ওই ঘরের দরজা ভেঙে দেখা যায় ঘরের ফ্যানের সঙ্গে শাড়ি বেঁধে ঝুলছে ওই ছাত্রী। কাঁথি থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে তাঁর মৃতদেহ নামিয়ে নিয়ে যায়।

বিধায়কের বাড়ির কাছাকাছি কুমারপুরের বাসিন্দা গীতাদেবী। তবে প্রায় ১০ বছর ধরে মেয়েকে নিয়ে বনশ্রীদেবীর বাড়িতেই থাকতেন তিনি। নিঃসন্তান বনশ্রীদেবীও দেবারতির দেখভাল ও পড়াশোনার যাবতীয় দায়িত্ব নিয়েছিলেন। দেবারতিও ভাল ছাত্রী ছিল বলে জানা গেছে। এই বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করেই এই বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল সে।

একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে গীতাদেবীও যেমন ভেঙে পড়েছেন, তেমনি মর্মাহত বনশ্রীদেবীও। কী কারণে এমন চরম সিদ্ধান্ত নিল ওই কিশোরী তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। প্রেমঘটিত কারণে আত্মহত্যা কি না খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Shares

Comments are closed.