মঙ্গলবার, মার্চ ২৬

সকাল সকাল টুইটে ড্যাশ ড্যাশ যুদ্ধ কৈলাস আর অভিষেকের, ধোঁয়া ওঠা চায়ের থেকেও গরম

দ্য ওয়াল ব্যুরো:  সকাল সকাল গরম গরম ডায়লগে জমে গেল। এ যেন ধোঁয়া ওঠা চায়ের থেকেও গরম টুইট যুদ্ধ।

উনিশের ভোট আসছে। তার আগে রাজনীতিতে কোনও কথাই আর একতরফা হবে না। কেউ আর মুখ সামলেও কথা বলবে না। বরং কথার পিঠে কথা হবে। হলোও তাই।

শুক্রবার রাতে শ্যামবাজারেরর সভা থেকে যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় স্বভাবসুলভ আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে বলেছিলেন, অমিত শাহকে চ্যালেঞ্জ করছি। বাংলার যে কোনও আসন থেকে প্রার্থী হোন। বলে বলে হারাব।

অভিষেক এ রকম কথা এর আগেও বলেছেন। আগামী ১৯ জানুয়ারি তৃণমূলের ব্রিগেড। তার আগে দলের কর্মীদের মধ্যে অ্যাড্রিনালিন রাশ ঘটাতে নেতা যে এ রকম বলবেন সেটাই দস্তুর। কিন্তু এ বার তা আর ফাঁকা গেল না। মাঝরাতেই টুইট করে জবাব দিলেন বিজেপি-র সাধারণ সম্পাদক ও বাংলার পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। বলেন, আপনে ঘর কে সামনে তো …. (ড্যাশ ড্যাশ) ভি শের হোতা হ্যায়। মানে, নিজের ঘরের সামনে তো — ও রাজা। সঙ্গে জুড়ে দেন, তৃণ তৃণ কা মূল বিখড়তে দের নেহি লাগেগি।

এর পরের মুহূর্তে পাল্টা টুইট করেন অভিষেক। কাদের খানের লেখা ডায়লগের মতোই গরম। তিনি লেখেন, বিলকুল সহি কহা আপনে, বাত যব বফাদারি কা হো, ড্যাশ ড্যাশ সে বড়কর কোই নেহি হোতা। এই অংশটুকু হিন্দিতেই টুইট করেছেন অভিষেক।. তার পরেই বলেছেন, আগে বাংলা শিখুন। তার পর বাংলা দখল করার স্বপ্ন দেখবেন।

ভোটের আগে এরকম আরও অনেক গরম গরম হুমকি আর পাল্টা হুমকি চলবে সব দলেই। বিশেষত যাঁরা সক্রিয় ভাবে টুইটারের মতো সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন এবং যাঁদের প্রচুর ফলোয়ার, তাঁরা প্রচার ও আক্রমণ যে টুইটারেও শানাবেন, তা পরিষ্কার।

Shares

Comments are closed.