বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫

টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গ্রেফতার বলরামপুরের নিখোঁজ বিজেপি কর্মী

 দ্য ওয়াল ব্যুরো, পুরুলিয়া :  চিটফান্ডের বিরুদ্ধে বিজেপির জেহাদে এই মুহূর্তে সরগরম গোটা  রাজ্য। তার ঢেউ আছড়ে গিয়ে পড়েছে সেই শিলং পর্যন্ত। এই পরিস্থিতিতেই বেশ কয়েক লক্ষ টাকা প্রতারণার অভিযোগে ফের এক চিটফান্ড এজেন্টকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এবং ঘটনাচক্রে এলাকায় বিজেপি কর্মী হিসেবেই তাঁর পরিচয়।

৫ ফেব্রুয়ারি ভাঙড়ার নবকুঞ্জের মাঠে অমিত শাহর সভা থেকে ফেরার পথে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন বিজেপি কর্মী কার্তিক গড়াই। বলরামপুর থানার কর্মা গ্রামে তাঁর বাড়ি। অনেক রাত পর্যন্ত বাড়ি না ফেরায় খোঁজ খবর শুরু করে তাঁর পরিবার। দলের কর্মীরা খুঁজতে বেরিয়ে ছোট উরমা থেকে কর্মা যাওয়ার রাস্তায় ৩২ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে কিছুটা দূরে তার মোটরবাইক ও ভাঙা মোবাইল ফোন পড়ে থাকতে দেখেন। বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরাই অপহরণ করেছে তাঁকে। এর আগে যেহেতু বলরামপুরে দুই বিজেপি কর্মী ত্রিলোচন মাহাতো ও দুলাল কুমার খুন হয়েছিলেন, তাই গাঢ় হয় উদ্বেগের মেঘ। শুরু হয় খোঁজ।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, চিটফান্ডের এজেন্ট ছিলেন কার্তিক। এলাকার বহু মানুষ তাঁর কাছে টাকা রেখেছিলেন। কিন্তু পরে সেই টাকা না পেয়ে দফায় দফায় তাঁর বাড়িতে হানা দেয়। টাকা ফেরত দেওয়ার চাপ সহ্য করতে না পেরেই অপহরণের নাটক করে তিনি গা ঢাকা দিয়েছিলেন বলে পুলিশের অভিযোগ।

নিখোঁজ হওয়ার পাঁচ দিন পর রবিবার রাতে কলকাতার পঞ্চসায়র থানা এলাকার একটি লজে তাঁর খোঁজ পায় পুলিশ। এরপরেই বেশ কয়েক লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। আজ ধৃতকে পুরুলিয়া জেলা আদালতে তোলা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, কার্তিকের কাছে থাকা মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে তাঁর খোঁজ মেলে। ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা মঙ্গলময় পাল নামে এক ব্যক্তির আধার কার্ড জাল করে কলকাতার ওই লজে তিনি গা ঢাকা দিয়েছিলেন বলেও পুলিশের দাবি। ৪০২ সহ বেশ কয়েকটি ধারায় কার্তিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করছে পুলিশ।

Shares

Comments are closed.