রবিবার, এপ্রিল ২১

এই বৌ তো প্রচারে ব্যস্ত, অন্য বৌ সোনায় : সৌমিত্র পত্নী

মৃন্ময় পান, বাঁকুড়া: তৃণমূল প্রার্থী শ্যামল সাঁতরার সমর্থনে জয়পুরের গোকুলনগর মাঠে সোমবার সভা করতে এসেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সে সভায় নাম না করেই অভিষেক বাঁকুড়ার বিদায়ী সাংসদ, বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁকে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, ‘বৌ আর বালি নিয়ে ব্যস্ত’। নাম না করলেও সেই মন্তব্যের লক্ষ্য কে বুঝে নিতে অসুবিধা হয়নি কারও। রীতিমতো বিতর্কের ঝড় ওঠে সেই মন্তব্য ঘিরে। এক দিন পর মুখ খুললেন সেই ‘বৌ’। তিনিও নাম নিলেন না কারও। তবে বললেন, “সৌমিত্র খাঁর বৌ ভোট প্রচারে ব্যস্ত। আর হরিদাস ব্যানার্জির বৌ সোনা পাচারে ব্যস্ত।” এ ক্ষেত্রেও তাঁর লক্ষ্য কে তা বুঝতে বাকি রইল না কারও।

মাত্র ১০ দিন আগে রাজনীতির ময়দানে নেমেছেন সুজাতা খাঁ। এ দিন স্বামীর হয়ে প্রচারে বেরিয়ে প্রথমেই কোতুলপুরে রক্ষা কালীর মন্দিরে পুজো দিলেন তিনি। এখানেই সেই বিতর্কিত মন্তব্যের প্রসঙ্গ উঠতেই সুজাতা বলেন, ‘ওনার শিক্ষা দীক্ষা, রুচিশীলতা, পারিবারিক পরিচয় নিয়ে আমার বলার কিছু নেই। ওটা জনগণ বিচার করবেন।  ১২ মে ভোটের বাক্সে তার প্রতিফলনও হবে। আমি এতো দিন জানতাম, উনি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়েছেন। কিন্তু আমার মনে হয় তা মিথ্যা, প্রকৃত শিক্ষা পেলে এক জন সাংসদ অন্য আর এক জন সাংসদকে রুচিহীন ভাষায় ব্যক্তি আক্রমণ করতে পারতেন না। রাজনৈতিক আক্রমণেই নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখতেন।”

সোনা পাচারের ব্যাপারে এই সুজাতার এই তীর্যক মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিল বাঁকুড়ার তৃণমূল সভাপতি অরূপ খাঁর। কিন্তু বিস্তারিত কিছু বলতে রাজি হননি তিনি। শুধু বলেন, “এমন অরুচিকর বক্তব্যের কোনও প্রতিক্রিয়া দেব না।”

Shares

Comments are closed.