শনিবার, আগস্ট ২৪

মৌসমের বাড়ি ঘেরাও, কোতোয়ালির গেট আটকে বিক্ষোভ তৃণমূল কর্মীদেরই

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা: তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠল কোতোয়ালি ভবন। নিশানায় মৌসম বেনজির নুর। সম্প্রতি গঠিত ব্লক থেকে পঞ্চায়েত স্তরের কমিটি ভেঙে নতুন কমিটি তৈরির দাবিতেই আজ বেলা বারোটা নাগাদ কোতোয়ালি ভবনে বিক্ষোভ শুরু করেন দলের কর্মী সমর্থকরা। তাঁদের বক্তব্য, এই কমিটির পুরোটাই কংগ্রেসের। নামটাই যা তৃণমূল। কারণ কংগ্রেস ছেড়ে যাঁরা তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন তাঁদের নিয়েই তৈরি হয়েছে এই কমিটি। আদি তৃণমূলের কাউকেই এখানে ঠাঁই দেওয়া হয়নি।

এই কমিটি ঘিরে দিন দুয়েক আগেও একবার বিক্ষোভ হয়েছে মালদা শহরে। তবে আজ এই বিক্ষোভের মাত্রা অনেকটাই বেশি। বেলা বারোটা নাগাদ প্রায় এক হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থক ঘিরে ফেলেন কোতোয়ালি ভবন। তাঁদের মুখে শ্লোগান, অবিলম্বে বাতিল করতে হবে ব্লক থেকে পঞ্চায়েত স্তর পর্যন্ত তৈরি তৃণমূলের কমিটি। উত্তেজনা সৃষ্টি হয় গোটা এলাকায়। মোথাবাড়ির ব্লক নেতা নজরুল ইসলাম ও মোথাবাড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিঙ্কু রহমান বিশ্বাস বলেন, “তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকে আমরা দল করছি। এখন দলের লাগাম কংগ্রেসের হাতে চলে গেছে। কমিটিতে যাঁদের ঠাঁই দেওয়া হয়েছে, তাঁরা সবাই কংগ্রেস ছেড়ে সুবিধা ভোগ করতে তৃণমূলে এসেছে। আমরা যাঁরা আদত তৃণমূল তাঁরাই কোনঠাসা পড়েছি। মৌসম সহ জেলা নেতৃত্বের কাছে আমাদের দাবি, অবিলম্বে এই কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি করতে হবে। না হলে আগামী দিনে লোকসভা নির্বাচনের থেকেও ভরাডুবি অপেক্ষা করছে তৃণমূলের জন্য।”

তৃণমূল কর্মী টোমা খানের দাবি, “এই কমিটি তৈরিতে অনেক টাকার লেনদেন হয়েছে। কাটমানি দিয়ে কমিটিতে পদ পেয়েছেন অনেকেই। তাঁরা কেউ আদি তৃণমূল নয়।”

মৌসম অবশ্য এ সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছেন। তিনি জানান, কমিটিতে পদ পাওয়া সবাই কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে এসেছেন এ অভিযোগ একেবারে মিথ্যে। টাকার লেনদেনের কথাও অস্বীকার করেছেন তিনি। মৌসম বলেন, “একটি অস্থায়ী কমিটি তৈরি হয়েছে। এই কমিটির কাজ ব্লকে ব্লকে দলের হয়ে যাঁরা ভাল কাজ করছেন তাঁদের খুঁজে বের করা। তারপরেই তৈরি করা হবে স্থায়ী কমিটি। কাজেই কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া লোকজনকে নিয়ে কমিটি তৈরি হয়ে গেছে বলে যাঁরা শোরগোল করছেন তাঁরা ভুল করছেন।”

নেত্রীর দাবি অবশ্য মানতে নারাজ কোতোয়ালি ভবনে জড়ো হওয়া তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা।

Comments are closed.