বুধবার, জুন ১৯

রক্তস্নানের পরেও কমছে না হুমকি, ঘুম উড়েছে হাটগাছির

দ্য ওয়াল ব্যুরো, উত্তর ২৪ পরগনা : ঘটনার দেড়দিন পরে এখনও আতঙ্কে ঘুমহীন ন্যাজাটের হাটগাছি গ্রাম। বাসিন্দাদের অভিযোগ, দিনের আলোয় তবু একরকম। কিন্তু বেলা পড়তেই শুরু হচ্ছে হুমকি। ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়ার, প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি। ফলে সন্দেশখালির ঘটনা নিয়ে রাজ্যজুড়ে তোলপাড় হলেও এখনও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন স্থানীয় মানুষজন।

মৃত প্রদীপ মণ্ডলের স্ত্রী পদ্মা মণ্ডল বলেন, “ পুলিশ নেই । গুটি কয়েক সিভিক ভলান্টিয়ার আছে। আবার যদি হানা দেয় দুষ্কৃতীরা, সেই ভয়ে গ্রাম ছেড়ে পালাচ্ছেন আমাদের পড়শিরা। আমার স্বামীর মৃত্যুর খবর শুনে যাঁরা দেখা করতে আসছেন, সেই আত্মীয়রাও বিকেল হতেই চলে যাচ্ছেন গ্রাম ছেড়ে। এত আতঙ্কে বাঁচা যায়?”

শনিবার থেকে নিখোঁজ বিজেপি কর্মী দেবদাস মণ্ডল। তাঁর স্ত্রী সুপ্রিয়া মণ্ডল বলেন, “শনিবারের হামলার পরে আর কোনও খোঁজ নেই আমার স্বামীর। পুলিশ আমার স্বামীকে খুঁজে দিতে পারেনি। আমাদেরও নিরাপত্তা দিতে পারছে না। সমানে হুমকি চলছে, আবার হামলা হবে।”

এরই মধ্যে বিজেপির ডাকা বনধে আজ আরও থমথমে গোটা এলাকা। তৃণমূল-বিজেপির তুমুল সংঘর্ষে শনিবার রাতে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় সন্দেশখালির হাটগাছি গ্রাম। গুলি ও অস্ত্রের কোপে দু’পক্ষের বেশ কয়েক জন কর্মী নিহত হন। জখম বহু।

নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই হাটগাছি গ্রামে বাড়ছিল রাজনৈতিক উত্তাপ। তৃণমূলের দলীয় কার্যালয় দখল করে সেখানে বিজেপির কর্মীরা পতাকা লাগাচ্ছিল বলে অভিযোগ। তারই প্রতিবাদে শনিবার সন্ধে ৬টা নাগাদ প্রতিবাদ মিছিল শুরু করে তৃণমূল কর্মীরা। সেই মিছিলেই হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে পাল্টা হামলার দাবি করে বিজেপি।

Comments are closed.