সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬

দিদি তাড়া করেছিলেন, ভাইয়েরা ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি শুনে মেরেই বসলেন বিজেপি কর্মীকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, উত্তর ২৪ পরগনা: ‘জয় শ্রীরাম’ বলায় এ বার এক বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠল বারাসতের বিজয়নগরে। গুরুতর জখম অবস্থায় শিবশঙ্কর দাস নামে ওই বিজেপি কর্মীকে বারাসত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত সপ্তাহেই চন্দ্রকোনায় নির্বাচনী সভা করতে যাওয়ার সময় রাধাবল্লভপুর গ্রামের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ের পাশে গিয়ে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিয়েছিলেন এলাকার কিছু যুবক। সেই স্লোগান শুনে কনভয় থামিয়ে নেমে পড়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই যুবকদের দিকে একরকম তেড়েই গিয়েছিলেন উত্তেজিত মুখ্যমন্ত্রী। আর আজ জয় শ্রীরাম উচ্চারণ করার জন্য বিজেপির এক কর্মীকে হেনস্থার অভিযোগ উঠল তাঁরই দলের কর্মীদের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ি থেকে খাওয়া দাওয়া করে বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ি ফিরছিলেন শিবশঙ্কর। সঙ্গে ছিলেন তাঁর স্ত্রী ও মা। এই সময় বিজয়নগর ক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েক জন তৃণমূল কর্মী তাঁকে লক্ষ্য করে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেন। শিবশঙ্কর পাল্টা জয় শ্রীরাম বলতেই তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে তারা। মারধর করা হয় শিবশঙ্করকে। বিজেপির বুথ সভাপতি রাজেশ সরকার বলেন, “তৃণমূলের লোকজনই প্রথম শিবশঙ্করকে দেখে জয় শ্রীরাম বলেন। শিবশঙ্কর পাল্টা জয় শ্রীরাম বলতেই বেধড়ক মারধর করা হল তাঁকে। শিবশঙ্করের চোখে রক্ত জমে গেছে। তাঁর মাথার পিছনেও আঘাত লেগেছে।”

স্থানীয় তৃণমূল নেতা অশনি মুখার্জি বলেন, “ব্যাপারটা দুঃখজনক। কিন্তু পুরোটাই বিজেপির পরিকল্পিত। শুধু অশান্তি পাকাতেই এ সব করছে তারা। সে দিন মুখ্যমন্ত্রী যখন চন্দ্রকোনা যাচ্ছিলেন তখন মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ের পাশে গিয়ে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিয়েছিল তারা। বৃহস্পতিবারও ইচ্ছে করে অশান্তি করতে তৃণমূলের ছেলেদের সামনে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেয় ওই যুবক।”

কিন্তু ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি শুনেই কেন এত উত্তেজনা ? সে প্রশ্নের উত্তর অবশ্য দিতে চাননি তিনি।

Comments are closed.