শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

ভোট নেই তো কী হয়েছে, মালদায় এখন সমানে সমানে টক্কর মোদী-মমতার

বিবেক সিংহ, মালদা : রাজনীতির আঙিনায় তাঁদের টক্কর অপরিচিত নয়, রাজ্যের উন্নয়নের দাবিদার হিসেবে নিজেদের তুলে ধরার প্রতিযোগিতাও চেনা। কিন্তু এ বার পরস্পরকে ছাপিয়ে যাওয়ার এই দৌড় ঐতিহ্যের রাখি উৎসবেও।

রাখিতে রীতিমতো টক্কর, ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’, আর ‘’কন্যাশ্রী-রূপশ্রী বাংলার উন্নয়নের কথা বলে’- এই দুই ভাবনার। কে বেছে নেবেন কোনটা, সেটা যে  কিনছেন তাঁর উপর, কিন্তু প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে এখন নাওয়া খাওয়ার সময় নেই রাখি শিল্পীদের। তাঁরাই জানালেন, মোদীর মুখ আর মমতার মুখের ছবি আঁকা রাখিই এ বার সুপার হিট।

১৪ আগস্ট বুধবার দেশজুড়ে পালিত হবে রাখি পূর্ণিমা। তার আগেই মালদার বিভিন্ন বাজারে ঢালাও বিক্রি হচ্ছে মোদী, মমতার ছবি দেওয়া রকমারি রঙবেরঙের রাখি। আট থেকে আশি সবার পছন্দের তালিকায় নাকি এমন রাখিই, দাবি রাখি বিক্রেতাদের। আবার বিজেপি-তৃণমূল দুই দলের জেলার হাইকমান্ডের নির্দেশেও কর্মী-সমর্থকরা মুঠো মুঠো তাঁদের নেতা নেত্রীদের ছবি দেওয়া রাখি কিনে জমাতে শুরু করেছেন এখন থেকেই। উৎসবের দিন স্কুল, কলেজের ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে রাস্তাঘাটের সাধারণ মানুষদের হাতে রাখি পরিয়ে প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে নিজেদের ব্যস্ত রাখবেন দলের কর্মী সমর্থকরা।

মালদা শহরের এক রাখি বিক্রেতা ভুবনচন্দ্র দাস বলেন, “উৎসবের এখনও সাত দিন বাকি। তার আগেই বাজারে ছেয়ে গিয়েছে মোদী-মমতার রাখি। নানা ধরণের রাখি থাকলেও মানুষের মধ্যে এই দুই নেতা-নেত্রীর ছবি দেওয়া রাখি কেনার উৎসাহটা এ বার বেশি। এমন এক একটা রাখির দাম ১০ টাকা।”

কোন রাখির বিক্রি বেশি?

“এখনও পর্যন্ত যা বিক্রি করেছি, তাতে দুজনেই সমানে সমানে টক্কর দিয়ে চলেছেন। আরও সাতদিনের মধ্যে কার পাল্লা ভারী তা হয়তো বোঝা যাবে।” বললেন ভুবনবাবু।

Comments are closed.