শনিবার, মার্চ ২৩

ওজন কমায়, ত্বকে জেল্লা আনে ‘ক্লোরোফিল ওয়াটার’, আর কী করে জানেন?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ডায়েট চার্ট হোক বা শরীর সুস্থ রাখার নিদান, চিকিৎসকরা সবসময়েই সবুজ শাক-সব্জি খাওয়ার পরামর্শ দেন। প্রোটিন, ভিটামিন, মিনারেলস ছাড়াও সবুজ সব্জির মধ্যে থাকে ক্লোরোফিল, যা শরীরের উপকার করে নানা ভাবে। সবুজ রঞ্জক বা ক্লোরোফিলের নাম স্কুলের বায়োলজির বইয়ের দৌলতে সবারই কম বেশি জানা। সালোকসংশ্লেষের সময় উদ্ভিদ এই জৈব অনুর মারফতেই সূর্যের আলো শোষণ করে। তবে সরাসরি ক্লোরোফিল পেতে কাঁচা শাক বা সব্জিকে যদি অনীহা হয়, তাহলে ক্লোরোফিল সাপ্লিমেন্ট ব্যবহার করাই ভালো। বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, এই সাপ্লিমেন্ট জলের সঙ্গে মিশিয়ে তৈরি হয় ‘ক্লোরোফিল ওয়াটার’, যা নিয়মিত খেলে ওজন তো কমবেই, লাভ হবে আরও ডজনখানেক।

এখন দেখে নিন কী কী উপকার হতে পারে ক্লোরোফিল ওয়াটার থেকে 

ত্বকের জেল্লা

ত্বকের পরিচর্যায় ও মেক আপের ক্ষেত্রে এমন কিছু ভুল আমরা প্রায়শই করে বসি, যার খেশারত দেয় আমাদের ত্বক। অ্যালার্জি থেকে শুরু করে ত্বকে র‌্যাশ এ সব অনেক সমস্যার দেখা দেয়। বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, ত্বকের জৌলুষ ফিরবে এই সাপ্লিমেন্ট নিলে। ক্লোরোফিল ত্বকের প্রদাহজনিত সমস্যা দূর করে। এর অ্যান্টি ব্যাকটিরিয়াল বা জীবানু নাশক ক্ষমতা ত্বকের ব্রণ বা কালো দাগ দূর করে।

লোহিত রক্ত কণিকার সংখ্যা বাড়ায়

হাড়ের মজ্জার মধ্যে লোহিত রক্ত কণিকা তৈরি হয়। তাই মজ্জায় কোনও অসুখ থাকলে লোহিত রক্ত কণিকা ঠিক মতো তৈরি হয় না। ভারতীয় মহিলাদের একটা বড় অংশ রক্তাল্পতায় ভোগেন। যার কারণ অনেকগুলো, ঋতুস্রাব, থ্যালাসেমিয়া, থাইরয়েডের সমস্যা, ক্যানসার, এডস, লিভারের সমস্যা, ম্যালেরিয়া, ভাইরাল হেপাটাইটিস ইত্যাদি।  ক্লোরোফিল সাপ্লিমেন্ট রক্তে লোহিত কণিকার মাত্রা সঠিক রাখে।  ২০০৪ সালের একটি গবেষণায় দেখা গেছিল হুইটগ্রাসের মধ্যে রয়েছে প্রায় ৭০ শতাংশ ক্লোরোফিল, যা থ্যালাসেমিয়া রোধ করতে সক্ষম।

ডিটক্সিফিকেশন

শরীর ডিটক্স করার কথা সব ডায়েটিশিয়ানরাই বলে থাকেন। কিন্তু ডিটক্স করা ঠিক কাকে বলে? পরিবেশ, খাবার থেকে প্রতি দিনই কিছু বিষাক্ত পদার্থ আমাদের শরীরে পৌঁছয়। সুস্থ থাকার জন্য এই সব টক্সিন শরীর থেকে দূর করা প্রয়োজন। অর্থাৎ, শরীরকে ডিটক্স করা প্রয়োজন। তা না হলে শরীরে ঘটতে পারে রোগ জীবাণুর সংক্রমণ। যার ফলে বিভিন্ন শারীরিক অসুস্থতা থেকে তৈরি হতে পারে বড়স়়ড় ঝুঁকি। ভারী ধাতুর কারণেও শরীরে টক্সিন পৌঁছতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে পারদ, লেড, আর্সেনিক। এই ধরনের ধাতুর প্রভাবে স্নায়ুতন্ত্র ও কিডনির সমস্যা হতে পারে। ক্লোরোফিলের মধ্যে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা শরীরের ক্ষতিকর টক্সিনকে বাইরে বার করে দেয়, ডিটক্স করতে সাহায্য করে।

ওজনে লাগাম

২০১৪ সালে ‘অ্যাপেটাইট’ নামে একটি বিজ্ঞানপত্রিকায় একটি গবেষণার রিপোর্টে দেখা গেছিল, ক্লোরোফিল মেদ কমাতে সাহায্য করে। বর্তমানেও নানা পরীক্ষায় বিজ্ঞানীরা দেখেছেন নিয়মিত ক্লোরোফিল ওয়াটার খেলে ১২ সপ্তাহের মধ্যে ওজন কমবে অনেকটাই। এমনকি দেখা গেছে, এই সাপ্লিমেন্ট শরীরে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল জমতে দেয় না, লিপোপ্রোটিনের মাত্রা কমায়। জাঙ্ক ফুডের প্রতি আসক্তি কমায়।

টিউমারের ঝুঁকি কমায়

গবেষণা বলছে তরল ক্লোরোফিল বা ক্লোরোফিল ওয়াটার যকৃত ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। অবাঞ্ছিত টিউমার হওয়ার আশঙ্কাও কমায়। ক্যানসারের জন্য দায়ী কার্সিনোজেনিক উপাদানের সঙ্গে জোট বেঁধে সেগুলিকে শরীর থেকে উৎখাত করে ক্লোরোফিল।

 

Shares

Comments are closed.