সোমবার, অক্টোবর ১৪

নবমীর রাতে পার্টি অফিসে ঢুকে গুলি দুষ্কৃতীদের, খুন পাঁশকুড়ার তৃণমূল নেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব মেদিনীপুর : নবমীর রাতে পার্টি অফিসের ভিতর খুন হলেন পাঁশকুড়ার তৃণমূল নেতা কুরবান শাহ(৩২)। মাইসোরা পার্টি অফিসে ঢুকে তাঁকে গুলি করে মারে দুষ্কৃতীরা রাত্রি সাড়ে দশটা নাগাদ পার্টি অফিসে বসেছিলেন পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি কুরবান। মহানবমীর রাতে বন্ধু কর্মীদের সঙ্গে চলছিল গল্পগুজব। রাত গড়াতে আস্তে আস্তে ঘরে ফিরছিলেন এক একজন করে। জনা পাঁচেক কর্মীর সঙ্গে ঘরে ফেরার তোড়জোড় করছিলেন কুরবানও।

তাঁর অনুগামীরা জানান, হঠাৎই জনা সাতেক দুষ্কৃতী অফিসের সামনে বাইক দাঁড় করিয়ে সটান ঢুকে পড়ে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই দুষ্কৃতীরা কুরবানকে লক্ষ্য করে প্রায় পাঁচ রাউণ্ড গুলি চালায়। পার্টি অফিসেই লুটিয়ে পড়েন কুরবান। হকচকিয়ে যাওয়া কুরবান অনুগামীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই দুষ্কৃতীরা বাইকে করে চম্পট দেয়। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় কুরবানের।

তৃণমূলের কর্মী সমর্থকদের দাবি, এর আগে পাঁশকুড়ার তৃণমূল নেতা কুরবান শা এর ওপর হামলার ছক কষেছিল দুষ্কৃতীরা। মাস দুয়েক আগেও তাঁকে মারার জন্য রিভলভার নিয়ে মাইসোরা পার্টি অফিসের সামনে ঘোরাফেরা করছিল এক যুবক। সে বার আগেভাগে টের পেয়ে কুরবান অনুগামীরা ধরে ফেলেছিল ঐ যুবককে। কিন্তু এ বার কেউ বুঝে ওঠার আগেই খুন হয়ে গেলেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, এ দিন প্রথমে তিনটি মোটরসাইকেলে করে ছ’জন তাঁর অফিসের সামনে যায়। তিনজন বাইরে দাঁড়িয়েছিল। বাকি তিনজন মুহূর্তের মধ্যে আফিসে ঢুকে কুরবানের বুক, মাথায় ও পিঠ লক্ষ্য করে ছ’রাউণ্ড গুলি চালায়। মেঝেতে লুটিয়ে পড়ে কুরবান। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। তারপর কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই পেছনে থাকা আরও দুটি মোটরবাইক সহ মোট পাঁচটি বাইক পাঁশকুড়ার দিকে চম্পট দেয়। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে তৃণমূল। তবে বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

Comments are closed.