শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কৃষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, ঋণের দায়ে আত্মঘাতী বলে পরিবারের দাবি

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা:  এক আদিবাসী কৃষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হল হবিবপুরের লালপুরে। ঋণের দায়ে নিজের জমিতে গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন বলে তাঁর পরিবারের দাবি। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃত ব্যক্তির নাম লক্ষ্মীরাম হাঁসদা (৫০)। তাঁর স্ত্রী মিনতি কিস্কু। ওই কৃষক দম্পতির দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে লক্ষ্মীরাম বাবুর কয়েক বিঘা জমি রয়েছে। তাঁর স্ত্রী জানান, মহাজনের থেকে চড়া সুদে ঋণ নিয়ে সেই জমিতেই চাষ করেছিলেন তিনি। কিছু টাকা ঋণ নিয়েছিলেন মহাজনের কাছ থেকেও। ফসল উঠলেই ঋণ শোধের ভাবনা ছিল। কিন্তু এ বার অনাবৃষ্টিতে জমিতে ফসল ফলাতে পারেননি। তার উপর ঋণের বোঝা। সবমিলিয়ে কিছুদিন ধরেই তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন বলে জানা গেছে।

সোমবার বিকেলে জমিতে গিয়েছিলেন তিনি। অনেকক্ষণ না ফেরায় তাঁর স্ত্রী খুঁজতে যান তাঁকে। তখনই দেখতে পান একটি গাছ থেকে ঝুলছে তাঁর দেহ। শোক আর দুর্ভাবনা গ্রাস করেছে গোটা পরিবারকে।

হবিবপুরের বিডিও শুভজিত জানা বলেন, ‘‘আকতইল গ্রাম পঞ্চায়েতে একজন কৃষক আত্মহত্যা করছেন বলে শুনেছি। তবে ঋণের দায়ে আত্মহত্যা কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’

Comments are closed.