বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রের মৃত্যু ঘিরে উত্তাল আন্দুলের স্কুল

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হাওড়া : তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু ঘিরে তীব্র উত্তেজনা ছড়ালো হাওড়ার আন্দুল রোডের একটি বেসরকারি স্কুলে। অভিযোগ শুক্রবার সকালে স্কুলে এসে অসুস্থ হয়ে পড়ে সোহম মাইতি (৭)। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় নিয়ে আসা হয় কলকাতার শিশু হাসপাতালে। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথ থেকে দেওয়া মৃত্যুর শংসাপত্রে মৃত্যুর কারণ হিসেবে অ্যাকিউট এনসেফ্যালাইটিসের উপসর্গের উল্লেখ রয়েছে।

এ দিকে আজ সকাল হতেই সোহমের স্কুলের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন অভিভাবকরা। তাঁদের অভিযোগ, শিশুটি অসুস্থ হওয়ার পর তার বাড়ির লোকেদের কোনও খবর দেওয়া হয়নি। তড়িঘড়ি শিশুটিকে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোহমের বাবা রবীন্দ্রনাথ মাইতি জানান, স্কুলে ছুটির সময় আনতে গিয়ে তাঁরা জানতে পারেন তাঁদের ছেলে অসুস্থ। এবং তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে পৌঁছোন তাঁরা। তখন খুবই খারাপ অবস্থা শিশুটির। সেখান থেকে সোহমকে তার পরিবারের লোকজন ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথে নিয়ে যান। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। কী কারণে সোহম স্কুলে অসুস্থ হয়ে পড়ল, স্কুল কর্তৃপক্ষ তা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ তাঁদের।

তবে গাফিলতির অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলের প্রিন্সিপাল জানান, সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ স্কুলে সিক্সথ পিরিয়ড চলার সময় ওই ছাত্র ক্লাসে অসুস্থ বোধ করতে থাকে। বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে ক্লাস টিচার তাঁকে জানান। তাঁরা দেরি না করে বাচ্চাটিকে কাছের হাসপাতালে নিয়ে যান। বাড়িতেও খবর দেওয়ার চেষ্টা হয়। তিনি বলেন, ‘‘বাচ্চাটি অসুস্থ হতেই আগে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে চেয়েছিলাম আমরা। কিন্তু দু ঘণ্টা পর তার বাড়ির লোকেদের খবর দেওয়া হয়েছে সেই অভিযোগ ঠিক নয়।’’

Comments are closed.