বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪

চিদম্বরমের ‘চরিত্রহনন’, রাহুল দুষলেন ‘মেরুদণ্ডহীন মিডিয়া’কেও

দ্য ওয়াল ব্যুরো : প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে চায় এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টরেট ও সিবিআই। কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গান্ধী ইতিমধ্যেই বলেছেন, চিদম্বরমকে নির্লজ্জের মতো খুঁজে বেড়ানো হচ্ছে। এরপরে কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধীও সরকারের সমালোচনা করে বললেন, মোদীর সরকার ইডি, সিবিআই ও একশ্রেণির মেরুদণ্ডহীন সংবাদ মাধ্যমকে ব্যবহার করে চিদম্বরমের চরিত্রহনন করতে চাইছে।

ইডি বুধবার চিদম্বরমের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি করেছে। এর ফলে তিনি বিমানে চড়ে বিদেশে পালাতে পারবেন না। অভিযোগ, তিনি অর্থমন্ত্রী থাকার সময় তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরম বিধি ভেঙে আইএনএক্স মিডিয়া নামে এক সংস্থাকে বিপুল পরিমাণে বিদেশি অর্থ পাইয়ে দিয়েছিলেন। কার্তিকে ওই মামলায় গত বছরই গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। তাঁকে ২৩ দিন জেলে কাটাতে হয়েছিল।

মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোর্ট চিদম্বরমের আগাম জামিন নাকচ করে দেয়। এরপর তিনি সুপ্রিম কোর্টে যান। প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বুধবার টুইট করেন, পি চিদম্বরম রাজ্যসভার একজন উচ্চশিক্ষিত ও সম্মানিত সদস্য। তিনি অর্থমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে কয়েক দশক ধরে দেশের সেবা করেছেন। তিনি নির্দ্বিধায় সত্য কথাটি বলতে পারতেন। সরকারের ভুলত্রুটিগুলি তুলে ধরতেন। কিন্তু কাপুরুষরা সত্যি কথা বলা পছন্দ করে না। তাই নির্লজ্জের মতো তাঁকে খুঁজে বেড়ানো হচ্ছে।

পরে প্রিয়ঙ্কা লিখেছেন, আমরা চিদম্বরমের পাশে আছি। আমাদের দল সব সময় সত্যের পক্ষে লড়াই করে যাবে, তাতে ফল যাই হোক না কেন। মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোর্টে আগামী জামিনের আবেদন নাকচ হওয়ার পরে চিদম্বরমকে আর দেখা যাচ্ছে না। বুধবার সকালে সি বি আই এবং এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টরেটের কর্মীরা চিদম্বরমের বাড়িতে গিয়েছিলেন। সেখানে বলা হয়েছে, তিনি বাড়ি নেই।

Comments are closed.