শুভ্র বন্দ্যোপাধ্যায় 

স্বপ্ন আসলে নোংরা ঘিনঘিনে কোনও জন্তুর পিঠ 

মহড়া বা অন্যান্য প্রকাশ্যের লোভে আমরা জড়িয়ে যাই 

এভাবেই নিজেকে পেয়েছি         অস্থিরতা 

ছটফটে একটা ম্লানোজ্জ্বল পানকৌড়ি     আধডোবা 

পুকুরের নিজস্ব এপ্রিলে      মুহূর্তেই যা হাতে পেয়েছি 

তা মুণ্ডচ্ছিন্ন শরীর     টাটকা রক্তে ভরে গেছে কলেজ ফেরত জামা 

আপনি যাকে ঘিনঘিনে ভাবছেন 

তা আসলে আমাদের প্রজন্মের না বুঝতে চাওয়া যৌবন 

আপনি যাকে পাথরে ড্রিল মেশিনের শব্দ ভাবছেন 

তা আসলে আমাদের উপমাবিহীন বাড়ি ফিরতে না চাওয়া সন্ধে 

যেন আমরা বুঝতে পারছি না এই অসম্ভব ছটফটানির কারণ 

যেন আচমকা কেউ এসে আমাদের শহরগুলোকে 

বিরাট একটা ধাক্কা দিয়ে গেছে 

ভিতরে আমরা বাক্সবন্দি পিঁপড়ের ঝাঁক 

এখনও আমরা ধারালো ও বিষাক্ত দাঁড়া দিয়ে 

পরস্পরকে রাসায়নিক বার্তা জানাচ্ছি 

আপনার কৌতুহল বাড়াবে তারা 

আপনার মনে পড়বে স্বপ্ন আসলে একটা বদ্ধ বাক্সে 

কিছু স্নায়ুকোষের রাসায়নিক বিনিময় 

এখানেই আমার সামনে রাস্তাগুলো খুলে আসে 

নিউরোনের ফ্যাকাশে নিয়ে 

গ্রীষ্মদুপুরের আলো যখন জ্বালা ধরাচ্ছে দৃষ্টিতে 

সারা শরীরে কাচের গুঁড়ো যাকে আমরা ঘাম বলে ডাকি 

চিত্রকর: বিপ্লব মণ্ডল